মহম্মদ বিতর্কে হিংসা, অভিযুক্তদের সঙ্গে ‘মিশন বুলডোজার’ যোগী সরকারর, তালিকায় আরও ৮৬ বাড়ি

হজরত মহম্মদ বিতর্কে হিংসাত্মক আন্দোলনে যুক্ত ব্যক্তিদের বাড়িঘর বুলডোজার দিয়ে গুঁড়িয়ে দিচ্ছে যোগী সরকার। এই নিয়ে বিতর্ক শুরু হয়েছে। কিন্তু যোগীর নেতৃত্বে বিজেপি সরকার অবিচল। তারা অভিযান চালিয়ে যেতে বদ্ধপরিকর। ইতিমধ্যেই ৮৬ জন অভিযুক্তের বাড়ি চিহ্নিত করা হয়েছে। তাদের বাড়ি গুঁড়িয়ে দেওয়া হবে বলে জানা গেছে।

প্রয়াগরাজে মহম্মদ জাভেদের বাড়ি ভেঙে দেওয়া নিয়ে তুমুল বিতর্ক তৈরি হয়েছে। পুলিশের বক্তব্য, গত শুক্রবারের প্রতিবাদ আন্দোলনে ওয়েলফেরার পার্টির এই নেতাই ছিলেন মূল হোতা। আন্দোলনকারীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট পাথর ছোঁড়ে। জাভেদ এখন পুলিশ হেফাজতে। গত পরশু প্রয়াগরাজ ডেভলপমেন্ট অথরিটি তাঁর বাড়ি ভেঙে দেয়। পুলিশ ও প্রয়াগরাজ ডেভলপমেন্ট অথরিটির দাবি বাড়িটি বেআইনি।

এলাহাবাদ হাইকোর্টের এক অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতিও বলেছেন, যা চলছে তা পুরোপুরি বেআইনি এবং অসাংবিধানিক। তাঁর বক্তব্য, কেউ পুলিশ বা আদালতের হেফাজতে থাকাকালীন কী করে তাঁর বক্তব্য না শুনে বসবাসের বাড়ি ভেঙে দেওয়া যেতে পারে? কোনও নির্মীয়মান বেআইনি বাড়িও এই ভাবে আত্মপক্ষ সমর্থনের সুযোগ না দিয়ে ভেঙে দেওয়া যায় না।

কিন্তু সমালোচনার মুখে যোগী সরকার বিন্দুমাত্র দমে না গিয়ে বুলডোজার অভিযান চালিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এখনও পর্যন্ত শুধু প্রয়াগরাজ প্রশাসন আরও ৮৬জন অভিযুক্তদের বাড়ি চিহ্নিত করেছে যাদের বাড়ি বেআইনি বলে প্রশাসনের দাবি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.