উত্তরপ্রদেশ, পঞ্জাব, গোয়া, মণিপুর ও উত্তরাখণ্ডের বিধানসভা ভোটে বিজেপির খরচ ৩৪৪ কোটিরও বেশি

চলতি বছরে উত্তরপ্রদেশ, পঞ্জাব, গোয়া, মণিপুর ও উত্তরাখণ্ডের বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপি খরচ করেছে ৩৪৪.২৭ কোটি টাকারও বেশি। পাঁচ বছর আগে এই পাঁচ রাজ্যের ভোটে নরেন্দ্র মোদীর দল খরচ করেছিল ২১৮.২৬ কোটি টাকা। নির্বাচন কমিশনের কাছে জমা পড়া রাজনৈতিক দলগুলির ভোটের খরচের তথ্য বিশ্লেষণ করে এমনই জানা গিয়েছে। এই হিসাবে, পাঁচ রাজ্যের ভোটে গত বারের চেয়ে এ বার প্রায় ৫৮ শতাংশ বেশি খরচ করেছে বিজেপি।

ওই পাঁচ রাজ্যে ভোটের খরচ বৃদ্ধির শতাংশের হিসাবে কংগ্রেস অবশ্য বিজেপিকেও পিছনে ফেলেছে। ২০১৭ সালে পাঁচ রাজ্যে কংগ্রেস ভোট লড়তে খরচ করেছিল ১০৮.১৪ কোটি টাকা। ২০২২ সালের ভোটে প্রায় ৮০ শতাংশেরও বেশি বেড়ে সেই খরচ দাঁড়িয়েছিল ১৯৪.৮০ কোটি টাকায়।

লোকসভা ও বিধানসভা ভোটের দিন ঘোষণার পর থেকে ভোট শেষ হওয়া পর্যন্ত পাওয়া যাবতীয় অনুদানের হিসাব রাখতে হয় রাজনৈতিক দলগুলিকে। রাখতে হয় ভোটের খরচের হিসাবও। বিধানসভা ভোট শেষ হওয়ার ৭৫ দিনের মধ্যে এবং লোকসভা ভোট শেষের ৯০ দিনের মধ্যে তা নির্বাচন কমিশনের কাছে জমা দিতে হয় তাদের। সাম্প্রতিক তথ্যগুলি উঠে এসেছে সেই খরচের হিসাব বিশ্লেষণ করেই।

তাতেই দেখা যাচ্ছে, চলতি বছরে পাঁচ রাজ্যের ভোটে বিজেপি সবচেয়ে বেশি— ২২১.৩২ কোটি টাকা খরচ করেছে উত্তরপ্রদেশে। গত বার এই খরচ ছিল ১৭৫.১০ কোটি টাকা, যা প্রায় ২৬ শতাংশ কম। তবে তুলনামূলক বিচারে রাজ্যওয়াড়ি ভোটের খরচ বিজেপি সবচেয়ে বেশি বাড়িয়েছে পঞ্জাব আর গোয়ায়। ২০১৭ সালে পঞ্জাবের ভোটে যেখানে তারা ৭.৪৩ কোটি টাকা খরচ করেছিল, সেখানে এ বারের ভোটে খরচ হয়েছে ৩৬.৭০ কোটি। অর্থাৎ প্রায় পাঁচ গুণ বেশি। যদিও সেখানে বিজেপি আসন জিতেছে সাকুল্যে দু’টি। গোয়াতে তাদের ভোটের খরচ পাঁচ বছরে ৪.৩৭ কোটি থেকে বেড়ে হয়েছে ১৯.০৭ কোটি, মণিপুরে ৭.৮৬ কোটি থেকে ২৩.৫২ কোটি এবং উত্তরাখণ্ডে ২৩.৪৮ কোটি থেকে ৪৩.৬৭ কোটি টাকা। সিংহভাগ খরচই হয়েছে নেতাদের যাতায়াত, মিছিল, সভা ও প্রচারে। ভার্চুয়াল প্রচারের খরচই প্রায় ১২ কোটি।

হিসাব বলছে, এ বছরের ৮ জানুয়ারি ভোট ঘোষণা থেকে শুরু করে ১২ মার্চ ভোট শেষ হওয়া পর্যন্ত বিজেপির কেন্দ্রীয় ও সংশ্লিষ্ট রাজ্যগুলির দফতরের তহবিলে মোট ৯১৪ কোটি টাকারও বেশি জমা পড়েছিল। কংগ্রেস সংগ্রহ করেছিল মোট ২৪০.১০ কোটি টাকা। অ্যাপ, সমাজমাধ্যম-সহ ভার্চুয়াল প্রচারে ১৫.৬৭ কোটি টাকা খরচ করেছিল রাহুল গান্ধীর দল। তবে তাদের রাজ্যওয়াড়ি খরচ জানা যায়নি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.