১৩ হাজার আতঙ্কবাদীকে গ্রেফতার করলো চীন! বিশেষ সম্প্রদায়ের উপর অত্যাচার হচ্ছে বলে প্রশ্ন তুললো মানবাধিকার সংগঠন।

চীন সেই দেশ যেখানে দালাই লামাকে আতঙ্কবাদী বলে বিতাড়ন করা হয় আর আতঙ্কবাদী মাসুদ আজহারকে বাঁচানোর জন্য ভিটো পাওয়ার ব্যাবহার করা হয়। চীন একটা অতিবাদী দেশ যার জন্য লাগাতার দুমুখো নীতি চীনের মধ্যে দেখা যায়।এখন চীন এমন কাজ শুরু করেছে যার জন্য চীনের বিরুদ্ধে বিশ্বজুড়ে আওয়াজ প্রবল হয়ে উঠছে। আসলে চীন বহু নির্দোষ মুসলিমকে সিনজিঙ্গা প্রান্তে বন্দি বানিয়ে রেখেছে। চীনি মুসলিমদের বন্দি বানিয়ে তাদের উপর অত্যাচার করা হচ্ছে। চীনে মিডিয়ার নিজস্ব কোনো ক্ষমতা নেই, সেখানে সরকার যা চাইবে সেটাই মিডিয়াকে প্রকাশিত করতে হয়। তাই বহু সময় ধরে খবর চেপে রাখার প্রয়াস করেছে চীন। কিন্তু এখন মামলা সামনে আসতে শুরু হয়েছে এবং কিছু মানবাধিকার সংগঠন চীনের বিরুদ্ধে প্রশ্ন তুলেছে।

আমেরিকা ও ইউরোপের কিছু মানবাধিকার  সংগঠন এই নিয়ে চীনের উপর বার বার প্রশ্ন তুলেছে। এখন চীন বাধ্য হয়ে উত্তরও দিয়েছে। চীন দাবি করেছে যে তারা ২০১৪ থেকে এখনো পর্যন্ত ১৩০০০ আতঙ্কবাদীকে গেপ্তার করেছে। অবশ্য যাদেরকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে তারা প্রত্যেকে মুসলিম। মানবাধিকার সংগঠনগুলি চীনকে জিজ্ঞাসা করেছে যে তারা মুসলিমদের সাথে এমন কেন করছে উত্তরে চীন সকলকে আতঙ্কবাদী বলে দিয়েছে।

নির্দোষ মুসলিমদের আতঙ্কবাদী সাজিয়ে চীন তাদের উপর অত্যাচার চালাচ্ছে বলে অভিযোগ সামনে এসেছে। চীন ভারতের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র চালাতো সেটা আগেই ফাঁস হয়েছে। আর এখন চীন মুসলিমদের উপরেও অত্যাচার চালাচ্ছে এটার তারা নিজেরাই স্বীকার করেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.