প্রত্যেক বছর রথ যাত্রার ঠিক আগে ভগবান জগন্নাথ স্বয়ং অসুস্থ হয়ে পড়েন। তাঁর জ্বর এবং সর্দি কাশি হয়; অসুস্থতার এমন পরিস্থিতিতে তাঁকে Quarantine করা হয় যেটাকে মন্দিরের ভাষায় অনাসর বলে। ভগবানকে ১৪ দিন পর্যন্ত একা বাস মানে isolation এ রাখা হয়। হ্যাঁ, ঠিক ১৪ দিন। এই সময় ভগবানের দর্শন বন্ধRead More →

আতঙ্ক করোনা ভাইরাস (Corona virus) , তাই এবার জনসমাগম কমছে হুগলীর (Hooghly) সবচেয়ে প্রাচীন গির্জা ব্যান্ডেল চার্চে (Bandel Church)। বিশ্বজুড়ে মহামারীর আকার নেওয়া করোনা ভাইরাসের (Corona virus) কারনে লোকজন প্রায় নেই বললেই চলে এই চার্চে। এমনিতে সারা বছর, বিশেষ করে ছুটির সময়ে স্থানীয়, এমনকি দেশ বিদেশ থেকে প্রচুর মানুষের সমাগমRead More →

সন্ধ্যা মানেই হরিদ্বারের (Haridwar) হর-কি-পৌরি ঘাটে ঢুঁ মেরে আসা। দেশ অথবা বিদেশ হোক, সমস্ত পর্যটকদের পছন্দের তালিকায় সর্বাগ্রেই থাকে হরিদ্বারের হর-কি-পৌরি ঘাট। গঙ্গা আরতি দেখতে প্রতিদিন সন্ধ্যাতেই পর্যটক তথা ভক্তদের সমাগম হয় হরিদ্বারের হর-কি-পৌরি ঘাটে। কিন্তু, করোনা-আতঙ্কে এবার হর-কি-পৌরি ঘাটে দর্শনার্থীদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। আগামী ৩১ মার্চ পর্যন্তRead More →

পর্ব_৬ : রাজার রাজা ধর্মরাজার নিকট শালেভর মানত সঙ্গে সুয় ভকিতা সভাই চলে সাথে। ধর্ম্মের পাদুকা রঞ্জাবতী নিল মাথে।। সদুল্যা বাজায় ঢাক হরিহর। বেদ পড়ে পন্ডিত করিয়া উচ্চস্বর।। পূজার পদ্ধতি হাথে যান পুরোহিত। কালিনী গঙ্গার ঘাটে হইল উপনীত।। জয়ধ্বনি শঙ্খধ্বনি পড়ে ঘন ঘন। নানা ধনে ধর্ম্মবতী করিল সাজান।। বেঙ্গাই গাঁয়েরRead More →

তখনও রামকৃষ্ণ (Ramakrishna) -বিবেকানন্দ ভাবান্দোলনের গনগনে রোদ্দুর; তখনও ঠাকুর-মা-স্বামীজির সামীপ্যে আসা বহু মানুষ জীবিত; এমতাবস্থায় কেন প্রয়োজন ঘটলো আর একটি সন্ন্যাসী-সঙ্ঘের? “যত মত তত পথ“-এর বাণীতে বহুধা বিভক্ত হিন্দু সমাজের তো কাছে আসার কথা ছিল! তবে কেন হিন্দু সমাজকে ডাক দিয়ে ‘শক্তি-সংগঠন-সেবা-সমন্বয়-সংযম‘-এর আদর্শে ফের তৈরি করতে হল ‘ভারত সেবাশ্রম সঙ্ঘ‘?Read More →

ভাবঘনমূর্তি শ্রীমৎ স্বামী প্রণবানন্দ (Srimati Swami Pranavananda) এক যুগপুরুষ, পতিতপাবন, ত্যাগব্রতী সন্ন্যাসী ও আচার্য; যিনি হিন্দু জাতি-গঠনের জন্য জনসংগঠনের উপর জোর দিয়েছিলেন। যিনি প্রাচীন ভারতীয় সঙ্ঘজীবনের সাদৃশ্যে, বৌদ্ধবিহার ও বৃহত্তর শিক্ষাসঙ্ঘের অনুকরণে সঙ্ঘবদ্ধ প্রয়াসে সৃষ্টি করেছিলেন; তারই পরিণতি ‘ভারত সেবাশ্রম সঙ্ঘ‘(Bharat Sevaharam Sangh), যার কর্মক্ষেত্র মূলত ভারতবর্ষ, ভারতীয় জাতির পুনর্গঠনইRead More →

দোল পূর্ণিমার সাথে বাঙালির একটা চিরন্তন সম্পর্ক আছে। রাধা-কৃষ্ণের দোলযাত্রা তো এই বাংলায় কিংবদন্তি। আবার, শ্রী চৈতন্য মহাপ্রভুও এ দিনটিতেই নবদ্বীপে জন্ম গ্রহণ করেন। তাই আজ গৌর-পূর্ণিমাও বটে। আবার বলীপুর-এর (বর্তমানে বোলপুর) রাজা সুরথ প্রায় ৫ হাজার বছর আগে, যেই তিথিতে প্রথম দুর্গা প্রতিমা নির্মাণ শুরু করেন, সেটিও ছিল দোলRead More →

ঊনবিংশ শতাব্দীর মধ্যভাগের অন্যতম প্রধান স্তম্ভ তথা লোকহিতৈষণার উজ্জ্বল নক্ষত্র লোকমাতা রানী রাসমণি (Rani Rasmani) দক্ষিণেশ্বর কালীমন্দিরের প্রতিষ্ঠাতা। কলকাতার জানবাজার নিবাসী এই কালী উপাসক ১৮৪৭ সালের এপ্রিল মাসে মনস্থ করেন সদলবলে নৌকাযোগে হিন্দুতীর্থ কাশীধামে যাবেন। তীর্থযাত্রার ঠিক একদিন আগে এক অদ্ভুত স্বপ্ন দেখলেন তিনি; দেবী অন্নপূর্ণা তাকে বলছেন, “কাশী যাবারRead More →

জেলা বর্ধমানের (Bardhaman) শহর আসানসোল থেকে তিন মাইল পূর্বদিকে স্টেশন কালীপাহাড়ি (Kalipahari)। এই কালীপাহাড়ির পশ্চিমে নির্জন মাঠে রয়েছেন গ্রামদেবী “ঘাগর বুড়ি।” একসময় একটি বুনো গাছের নিচে শিলামূর্তিরূপে বিরাজিতা ছিলেন। বর্তমানে মন্দিরে তাঁর অবস্থান।পাশ দিয়ে বয়ে চলেছে ছোট্ট নদী—নুনিয়া।“ঘাগর” শব্দের অর্থ, ঝাঁজ বাদ‍্য ও ঘুঙুর। পুরাণে বিভিন্ন পুজো পদ্ধতির মধ্যে নাচ-গান-বাজনাRead More →

মন্দিরে যাওয়ার পথেও কালো পতাকা দেখানো হয় তাঁকে। পুলিশ অবশ্য এদিন সকাল থেকেই সক্রিয় ছিল। দর্শনার্থীদের উপরেও ছিল নিষেধাজ্ঞা। এলাকার সমস্ত দোকানও বন্ধ রাখা হয়।  একদিনের সফরে অনেক কর্মসূচি। রবিবার প্রথমে রাজারহাটে এনএসজি (NSG) -র দফতর উদ্বোধনের পরে শহিদ মিনারে সমাবেশ। আর সেখান থেকে সোজা চলে যান কালীঘাটে (Kalighat)। মমতাRead More →