‘পয়লা বৈশাখ’ বাংলা বঙ্গাব্দের প্রথম মাসের প্রথম দিন। এই দিনটি বাংলা পঞ্জিকা অনুসারে নববর্ষ হিসেবে বিশেষ উৎসবের সাথে পালিত হয়। এটি বাঙ্গালিদের একটি সর্বজনীন উৎসব হিসেবেও বিবেচিত। গ্রেগরীয় বর্ষপঞ্জি অনুসারে ১৪ ই এপ্রিল অথবা ১৫ এপ্রিল ‘পহেলা বৈশাখ’ পালিত হয়। আধুনিক বা প্রাচীন যে কোনও পঞ্জিকাতেই এই বিষয়ে মিল পাওয়াRead More →

একদিকে করোনা ভাইরাসের প্রকোপ সারা বিশ্ব জুড়ে। মারণ ভাইরাসের হাত থেকে রেহাই পায়নি ভারতও। এমনকি পশ্চিমবঙ্গের অবস্থাও দিনে দিনে এগোচ্ছে খারাপের দিকেই। এরই মধ্যে বাঙালিদের জন্য হাজির এক বিশেষ দিন। নতুন আশা-আকাঙ্খা নিয়ে হাজির বঙ্গাব্দ ১৪২৮। নিঃসন্দেহে বাংলা বছরের প্রথম দিনটা বিশ্বের সব বাঙালিদের কাছে বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ। এদিন যেন আলাদাইRead More →

১৭৫৭ সাল। রবার্ট ক্লাইভ সিরাজদৌল্লার বিরুদ্ধে যুদ্ধের প্রস্তুতি নিচ্ছেন। দক্ষিণ পশ্চিম মৌসুমিবায়ু যেদিন বৃষ্টি নিয়ে বাংলায় ঢুকবে সেদিনই হবে আক্রমণ। তাই সুন্দরবন থেকে মুর্শিদাবাদ পর্যন্ত ঘাটে ঘাটে পাল তোলা নৌকা আর অভিজ্ঞ স্থানীয় মানুষ। বৃষ্টি আসার খবর যেন কয়েক ঘন্টায় চলে আসে মুর্শিদাবাদে। সেই সঙ্গে সামান্য কয়েক টঙ্কা বীমার পদাতিক।Read More →

পণ্ডিত রবিশঙ্কর (জন্ম : ৭ই এপ্রিল, ১৯২০, বেনারস, উত্তর প্রদেশ, ভারত – মৃত্যু : ১১ই ডিসেম্বর, ২০১২, স্যান ডিয়েগো, ক্যালিফোর্নিয়া, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র) একজন ভারতীয় বাঙালি সঙ্গীতজ্ঞ যিনি সেতারবাদনে কিংবদন্তিতুল্য শ্রেষ্ঠত্বের জন্য বিশ্বব্যাপী সুপরিচিত। ভারতীয় শাস্ত্রীয় সঙ্গীতের মাইহার ঘরানার স্রষ্টা আচার্য আলাউদ্দীন খান সাহেবের শিষ্য রবি শঙ্কর ভারতীয় শাস্ত্রীয় সঙ্গীতের ঐতিহ্যRead More →

•রঙে আবিরে মেতে ওঠার উৎসবের নাম হোলি হওয়ার পিছনে রয়েছে একটি গল্প ৷ পুরাণে বর্ণিত সেই গল্প অশুভ এর উপর শুভের জয়ের গল্প৷ •ভাগবত পুরাণের সপ্তম অধ্যায় অনুসারে হিরণ্যকশিপু নামে এক অসুর রাজা ছিলেন৷ তিনি চাইতেন অমরত্ব লাভ করতে এবং চাইতেন সবাই তাঁর পুজো করুক৷ সবাই তাঁর ভয়ে পুজো করলেওRead More →

সাহিত্য পাঠ করতে গেলে সাহিত্যেক সম্পর্কে এবং নির্দিষ্টভাবে পাঠ্য বিষয়ের উপর অনুপুঙ্খভাবে জানতে হয় l কারণ কোনো লেখা বা বই আকাশ থেকে পড়ে না l একজন লেখক তাঁর রচয়িতা l সেই লেখক ও তাঁর সমাজ ও সময়ের প্রতিনিধি ও প্রতিবেদক l লেখকের পরিপার্শ্বই তাঁর সৃষ্টিকর্মের চরিত্রকে মূলত নির্মাণ করে, তাঁরRead More →

শ্রীরামকৃষ্ণ পরমহংস দেব (১৮৩৬-১৮৮৬) হিন্দু সংস্কারক ও আধ্যাত্মিক মানবতাবাদী। ১৮৩৬ খ্রিস্টাব্দের ১৮ ফেব্রুয়ারি পশ্চিমবঙ্গের হুগলি জেলার কামারপুকুর গ্রামে এক মধ্যবিত্ত ব্রাহ্মণ পরিবারে তাঁর জন্ম। পিতা ক্ষুদিরাম চট্টোপাধ্যায় এবং মাতা চন্দ্রমণিদেবী দেবতা বিষ্ণুর অপর নামানুসারে পুত্রের নাম রাখেন গদাধর। এই গদাধরই পরবর্তীকালের শ্রীরামকৃষ্ণ পরমহংস। এটি তাঁর আশ্রমী নাম। বাল্যশিক্ষার ব্যবস্থা হলেওRead More →

ফুটপাথ উপচে প্রায় রাস্তায় নেমে আসা শহরময় দখলদার আর ক্রমবর্ধমান ভবঘুরে দেখলে মনে একটা ধাক্কা লাগে। এটাই কি কলকাতার পরিচয়? বেশ কিছু ভাল জিনিস আড়ালে লুকিয়ে আছে। যেমন আইএসআইয়ের আম্রপালি, রাজাবাজারে আচার্য ভবন, স্বামী বিবেকানন্দর জন্মভিটের মত বেশ কিছু দ্রষ্টব্য। গত বছর ১১ জানুয়ারি প্রধানমন্ত্রী মোদী বিবাদি বাগে ওল্ড কারেন্সিRead More →

অনুরূপা দেবী (৯ সেপ্টেম্বর ১৮৮২- ১৯ এপ্রিল ১৯৫৮) একজন বাঙালি ঔপন্যাসিক। অনুরূপা দেবীর পিতার নাম মুকুন্দদেব মুখোপাধ্যায় এবং পিতামহ ছিলেন বিশিষ্ট লেখক ভূদেব মুখোপাধ্যায়। তার দিদি ইন্দিরা দেবী ছিলেন একজন ঔপন্যাসিক, ছোটগল্পকার এবং কবি। তিনি তার আইন ব্যবসায়ী স্বামী শিখরনাথ বন্দ্যোপাধ্যায়ের সাথে মজঃফরপুরে বসবাস করতেন। অনুরূপা দেবী তার পিতামহ ভূদেবRead More →

আজ আপনাদের এমন একজন ভারতীয় রাজার গল্প বলব, দেশের জন্য তথা দেশের প্রতি যার অবদান ছিল অনস্বীকার্য, কিন্তু সেইসব কিছুই আজ হারিয়ে যেতে বসেছে কালের নিয়মে আর কিছুটা অবশ্যই মানুষের বিস্মৃত স্বভাবের জন্য। ভারতীয় সংস্কৃতি, ইতিহাস এবং ধর্মের প্রতি তাঁর অবদান আজও রয়ে গেছে লোকচক্ষুর আড়ালে, চেনা গন্ডীর ওপারে। হ্যাঁ,Read More →