আমাকে খুন করার চেষ্টা করা হয়েছে৷ কারণ তৃণমূল বুঝতে পেরেছে শান্তনু ঠাকুর গণতান্ত্রিক লড়াইয়ে এগিয়ে আছে৷এই চক্রান্তের সঙ্গে মমতাবালা ঠাকুরও জড়িয়ে রয়েছেন৷ সোমবার সকালে ভোট দিতে যাওয়ার সময় বিস্ফোরক মন্তব্য করলেন বনগাঁ লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী শান্তনু ঠাকুর৷

বনগাঁ লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী শান্তনু ঠাকুরের সমর্থনে গত শনিবার সকালে কল্যাণীতে একটি রোড শো করার কথা ছিল দলের পর্যবেক্ষক কৈলাস বিজয়বর্গীয়ের। সেই কর্মসূচিতে যোগ দিতে ঠাকুরনগরের বাড়ি থেকে কল্যাণী যাচ্ছিলেন শান্তনু। পথেই তাঁর গাড়িতে পুলিশের একটি গাড়ি মুখোমুখি এসে ধাক্কা মারে৷

এরপর শান্তনু ঠাকুরকে বনগাঁর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানেই তাঁর চিকিৎসা চলছে। বিজেপি প্রার্থী শান্তনু ঠাকুরের দুর্ঘটনার পরই গেরুয়া শিবিরের অভিযোগ, পুলিশের স্টিকার লাগানো গাড়ি চেপে এসে তৃণমূলের লোকজনই এই ঘটনা ঘটিয়েছে।শান্তনুকে খুনের চক্রান্ত করা হয়েছে। গোটাটাই পরিকল্পিত ছিল। শান্তনুর বাবা মঞ্জুলকৃষ্ণ ঠাকুরও এই একই দাবি করেছেন৷

যদিও সেই অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছেন উত্তর ২৪ পরগণা জেলার তৃণমূল কংগ্রেস সভাপতি তথা মন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক। তিনি বলেন, “কিচ্ছু হয়নি, কোনও ধাক্কাই লাগেনি। নাটক করছে।আসলে বুঝতে পেরেছে যে হেরে গিয়েছে। তাই এই সব নাটক সাজিয়েছে। মাথায় একটা লিউকোপ্লাস্ট লাগিয়েছে নিজেই হাসপাতালে চলে গিয়েছে।”

এর পাল্টা প্রতিক্রিয়ায় এদিন শান্তনু ঠাকুর বলেন, “জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক একটা মস্তান৷ তিনি ঠাকুরবাড়ির মধ্যে অশান্তির পরিবেশ তৈরি করে মতুয়া ভোটের দখল নিতে চাইছেন৷”

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.