ভিডিও পোস্ট এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টিকটকে (TikTok) হিন্দু মেয়েদের ইসলাম গ্রহণে উৎসাহিত করা হচ্ছে। ইদানিং এমন কিছু ভিডিও পোস্ট করা হচ্ছে, যেগুলোতে দেখানো হচ্ছে যে একজন হিন্দু মেয়ে ইসলাম ধর্ম গ্রহন করছেন। রীতিমত বোরখা পরে ইসলামী কায়দায় সেলাম জানাচ্ছেন তাঁরা। এবং প্রত্যেকটি ভিডিও একই গানের ওপর তৈরি

প্রথম ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে একটি মেয়ে সনাতন হিন্দু রীতিতে নমস্কার জানাচ্ছে। তারপর কারওর দিকে তাকিয়ে একটু দুঃখ অনুভব করলো। তারপর বোরখা পরে ইসলামিক কায়দায় সেলাম বা আদাব ঠুকছে।

আর একটি ভিডিও সামনে এসেছে। সেই ভিডিওতে একটি মেয়ে ভিডিওতে সাবটাইটেল লেখার মাধ্যমে নিজের বক্তব্য প্রকাশ করছে। প্রথমে মেয়েটি বলে, তুমি আমাকে বিয়ে করবে? উত্তরে ছেলেটি বলে- তুমি হিন্দু, আব্বু মানবে নাতখনই মেয়েটি বোরখা পরে মুসলমান রূপ ধারণ করে এবং ইসলামী সেলাম দেয়

আর একটি ভিডিওতে একটি হিন্দু মেয়ে একটি ছেলেকে বলে -আমি তোমাকে ভালোবাসি। উত্তরে ছেলেটি বলে- তুমি কি রোজ নামাজ পড়ো? মেয়েটি উত্তরে জানায়- না। তখন ছেলেটি বলে- প্রথমে ওপরের খুদাকে ভালোবাসো, তারপরে আমায় ভালোবাসবে

আশ্চর্যজনকভাবে এই সবকটি ভিডিও একই গানের ওপর তৈরি। এইরকম কয়েকশ ভিডিও টিকটকে ছাড়া হয়েছে। এই ভিডিওগুলিতে সরাসরি হিন্দু মেয়েদের ইসলাম ধর্ম গ্রহণের দৃশ্য দেখানো হয়েছে। তা সত্বেও টিকটক এই ভিডিওগুলি নিষিদ্ধ করেনি কিংবা এদের একাউন্ট ব্লক করেনি। কারণ এর আগে মুসলিম বিরোধী ভিডিও তকমা দিয়ে অনেক ভিডিও ডিলিট করেছিল টিকটক (TikTok)। পাশাপাশি ভিডিও পোস্টকারী ব্যক্তির একাউন্ট ব্লক করেছিল টিকটক (TikTok) । কিন্তু হিন্দু মেয়েদের ধর্মান্তরণে উৎসাহিত করার ভিডিও পোস্ট হওয়ায় নীরব ফেসবুক। এর আগে ভারত বিরোধী প্রচার চালানোর অভিযোগ উঠেছিল টিকটকের বিরুদ্ধে। পাশাপাশি ‛নামাজ পড়লে করোনা হবে না’ এমন প্রচার চালানো হয়েছিল টিকটকে। এবার সরাসরি লাভ জিহাদকে উৎসাহিত করছে এই মাধ্যমটি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.