জঙ্গি সন্দেহে ১৪০ জনকে খুঁজছে শ্রীলঙ্কা পুলিশ।

শুক্রবার তল্লাশি চালানোর সময় জঙ্গিদের সঙ্গে গুলির লড়াই শুরু হয়ে যায় শ্রীলঙ্কা সেনার। পূর্ব শ্রীলঙ্কার আম্পারা জেলার সাম্মানথুরিতে সন্দেহভাজন জঙ্গিদের ডেরায় অভিযান চালানোর চেষ্টা করতেই পরপর তিনটি বিস্ফোরণ ঘটায় তারা।

শ্রীলঙ্কা পুলিস ও সেনার দাবি এখনও পর্যন্ত ৭ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। উদ্ধার করা হয়েছে বিপুল পরিমাণ বিস্ফোরক। পাওয়া গিয়েছে ৫০টি জিলেটিন স্টিক, ১ লাখ ধাতব বল, একটি ড্রোন ক্যামেরা।

এদিকে, ভারতেও জারি করা হয়েছে হাই অ্যালার্ট। ১৯ জঙ্গির উপস্থিতির রিপোর্ট দিয়েছে কর্ণাটক পুলিশ। দেশের অন্তত ছয় রাজ্যে হামলা হতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

জঙ্গি হামলার সতর্কবার্তা পেয়ে ছয় রাজ্যের ডিজি-কে চিঠি দিয়েছেন কর্ণাটকের ডিজি-আইজিপি নীলমনি এন রাজু। শুক্রবারই ওই চিঠি লিখেছেন তিনি। অ্যালার্ট জারি হয়েছে কেন্দ্র শাসিত অঞ্চলেও। মূলত দেশের দক্ষিণেই জঙ্গি হামলার আশঙ্কা করা হচ্ছে।

পুলিশ অফিসারের চিঠি অনুযায়ী, তাঁর কাছে এক অজ্ঞাতপরিচয় ব্যক্তির ফোন এসেছিল। সেই ফোনেই দেশের ছয় রাজ্যে হামলার ব্যাপারে সতর্ক করা হয়েছে। হিট লিস্টে রয়েছে তামিলনাড়ু, কর্ণাটক, কেরল, অন্ধ্রপ্রদেশ, তেলেঙ্গানা, পুদুচেরী, গোয়া ও মহারাষ্ট্র।

বিশেষত ট্রেনে হামলা হতে পারে বলে ওই ফোনে সতর্ক করা হয়েছে। কর্ণাটক পুলিশের তরফ থেকে জানানো হয়েছে, তামিলনাড়ুর রামনাথপুরমে অন্তত ১৯ জঙ্গি লুকিয়ে থাকতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

কোনও ঘটনা ঘটার আগে যাতে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হয়, সে ব্যাপারে সতর্ক করেছে কর্ণাটক পুলিশ। গত সপ্তাহেই ইস্টারের সকালে পরপর বিস্ফোরণে কেঁপে উঠেছে শ্রীলঙ্কা। অন্তত ২৫০ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গিয়েছে। এরপরই ভারতের দক্ষিণে হামলার আশঙ্কা বেড়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.