‘বুর্জ খলিফার’ আলোর ঝলকানিতে বিমান অবতরণে অসুবিধা করছে, অভিযোগ থানায়

এখন দুর্গাপুজো নিয়ে নালিশ করা হল। আর সেই নালিশ করা হয়েছে শ্রীভূমি স্পোর্টিং ক্লাবের দুর্গাপুজোর বিরুদ্ধে। এই নালিশের পরই জোর বিতর্ক শহরজুড়ে। কারণ এই পুজোর আলোর রোশনাইয়ে এবং ঝলকানিতে বিমান ওঠা–নামা করতে অসুবিধা হচ্ছে বলে অভিযোগ। এবার শ্রীভূমি স্পোর্টিং ক্লাব পুজোমণ্ডপের থিম করেছে বুর্জ খলিফা। তাতে দেশ তথা বিশ্বের দরবারে চর্চা শুরু হয়ে গিয়েছে। এবার দমদম বিমানবন্দরে বিমান অবতরণে অসুবিধা করছে পুজোমণ্ডপের আলোর ঝলকানি বলে অভিযোগ দায়ের হয়েছে বিধাননগর পুলিশের কাছে।

পুলিশ সূত্রে খবর, সোমবার রাতে এই অভিযোগ দায়ের হয়েছে। কলকাতা বিমানবন্দরে বিমান অবতরণের সময় শ্রীভূমির পুজোমণ্ডপের স্পট লাইটের আলো পাইলটদের অসুবিধার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। এমনকী এই নিয়ে বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষের কাছে ইতিমধ্যেই তিনটে পৃথক বেসরকারি বিমান সংস্থার পাইলটদের পক্ষ থেকে অভিযোগ জমা পড়ে এয়ার ট্র্যাফিক কন্ট্রোলে। সেখান থেকে অভিযোগ যায় বিধাননগর পুলিশের কাছে। কলকাতা বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ অভিযোগ দায়ের করেছে।

স্থানীয় সূত্রে খবর, শ্রীভূমির দুর্গাপুজোর উদ্যোক্তা দমকল মন্ত্রী সুজিত বসু। এবারের থিম বুর্জ খলিফা। শ্রীভূমির দুর্গা প্রতিমাকে সাজানো হয়েছে ২০ কোটি টাকায়। প্রতিমার গায়ে রয়েছে ৪৫ কেজি সোনার গয়না। তাই নিরাপত্তায় বিশাল পুলিশবাহিনী রয়েছে। এখানেই ব্যবহৃত স্পট লাইট অসুবিধার সৃষ্টি করছে বিমান অবতরণে।

ঠিক কী অসুবিধার কথা বলা হয়েছে?‌ অভিযোগ, শ্রীভূমি স্পোর্টিংয়ের পুজোমণ্ডপের আলো এমনভাবে বিচ্ছুরিত হচ্ছে যে রানওয়েতে ক্যাট আলো ঠিকমতো চোখে পড়ছে না পাইলটদের। তাতেই ঝুঁকির আশঙ্কা তৈরি হচ্ছে। বিধাননগর থানায় ই–মেইলের মাধ্যমে অভিযোগ জানানো হয়েছে। বিধাননগর পুলিশ মন্ত্রী সুজিত বসুকে অনুরোধ করেছেন, পুজোমণ্ডপের স্পটলাইট বন্ধ রাখতে। তাই সপ্তমীতে ওই আলো বন্ধ রয়েছে বলে সূত্রের খবর।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.