কোভিড কড়াকড়িতে নয়া নির্দেশিকা রাজ্যের, এখন থেকে খোলা রাখা যাবে মিষ্টি-সহ একাধিক খুচরো দোকান

কোভিড নিয়ন্ত্রণে রাজ্য জুড়ে কড়াকড়ি নির্দেশিকা জারি হয়েছিল আগেই। এ বার সেই নির্দেশিকা কিছুটা রদবদল করা হল। সামাজিক অনুষ্ঠানের ক্ষেত্রে ৫০ জন পর্যন্ত জমায়েতের অনুমতি দেওয়া হল। মুদিখানা এবং ওষুধের দোকান-সহ আরও অন্য কিছু সামগ্রীর দোকান খুলে রাখতেও অনুমতি দিল রাজ্য সরকার।

শনিবার সন্ধ্যায় যে নির্দেশিকা প্রকাশ করেছে রাজ্য, তাতে বলা হয়েছে, বাজার-হাট যেমন সকাল ৭টা থেকে ১০টা এবং দুপুর ৩টে থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত খোলা রাখার অনুমতি দেওয়া হয়েছিল, সব খুচরো দোকানের ক্ষেত্রেও তা প্রযোজ্য। শপিং মলের বাইরে থাকা একক দোকানও ওই সময়ে খোলা রাখা যাবে।

ওষুধের দোকান সারাদিনই খোলা থাকবে বলে জানিয়েছে রাজ্য সরকার। একই সঙ্গে বৈদ্যুতিক সরঞ্জাম, স্বাস্থ্য সরঞ্জাম, ফোন, মুদিখানা, মিষ্টি এবং মাংসের দোকানও সারাদিন খোলা রাখা যাবে। যানবাহনের যন্ত্রাংশের দোকান খোলা রাখাতেও বিধিনিষেধ নেই। চালু থাকবে দুধ সরবরাহ পরিষেবাও।


বিয়েবাড়ি এবং সমস্ত রকমের সামাজিক অনুষ্ঠানে যদিও অনুমতি দিয়েছে সরকার। তবে সে ক্ষেত্রে ৫০ জনের বেশি অতিথি সমাগম কাম্য নয় বলে সাফ জানিয়ে দেওয়া হয়েছে। তবে কড়াকড়ি খানিকটা শিথিল করলেও, সব ক্ষেত্রেই মাস্ক ও স্যানিজাইজারের ব্যবহার এবং সামাজিক দূরত্ব বিধি পালন বাধ্যতামূলক বলে জানিয়েছে রাজ্য।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.