বিজেপির মহিলা কর্মীর শ্লীলতাহানি, অর্জুন সিংয়ের নেতৃত্ব রণক্ষেত্র জগদ্দল-কাঁকিনাড়া

বিজেপির এক মহিলা কর্মীর শ্লীলতাহানির অভিযোগে রণক্ষেত্র জগদ্দল-কাঁকিনাড়া এলাকা। ঘটনার প্রতিবাদে রবিবার রাতে অর্জুন সিং-এর নেতৃত্বে জগদ্দল থানা ঘেরাও করেন বিজেপির নেতা কর্মীরা। এছাড়া রাস্তায় শুয়ে পড়ে অবরোধ করে অর্জুন সিং। সোমবার সকাল থেকে অভিযুক্তের শাস্তির দাবি ও এই ঘটনায় নির্বাচন কমিশনের হস্তক্ষেপের দাবি জানিয়ে কাঁকিনাড়া স্টেশন সংলগ্ন এলাকায় রেললাইন অবরোধ করেন বিজেপির কর্মীরা। যার জেরে নাকাল নিত্তযাত্রীরা।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রের খবর, রবিবার সকাল থেকে উত্তর ২৪ পরগনার ভাটপাড়া হাসপাতাল চত্বরে দেওয়াল লিখন চলছিল বিজেপির। অভিযোগ, সেই সময় তাঁদের বাধা দেন স্থানীয় ১৫ নম্বর ওয়ার্ডের তৃণমূল কাউন্সিলর মনোজ গুহ, তাঁর ভাই বিদ্যুৎ গুহ-সহ ৫ জন। অভিযোগ, এরপর তাঁরা এলাকারই এক মহিলা বিজেপি কর্মীর বাড়িতে চড়াও হন। ওই মহিলার স্বামীকে মারধর করে তৃণমূলের কাউন্সিলর ও কর্মীরা। অভিযোগ, সেখানে ওই মহিলার শ্লীলতাহানিও করা হয়। বিষয়টি প্রকাশ্যে আসতেই উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে এলাকায়।

রাত ১১ টা নাগাদ বিজেপি কর্মীদের নিয়ে জগদ্দল থানায় হাজির হন অর্জুন সিং। অভিযুক্তদের শাস্তির দাবিতে থানা ঘেরাও করে বিক্ষোভ দেখান তাঁরা। সেখানে মুখ্যমন্ত্রীকে কটাক্ষ করেন বারাকপুর লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী অর্জুন সিং। তিনি বলেন, “যে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মহিলা, সেখানেই সুরক্ষিত নন মহিলারা।” তাদের দাবি, অবিলম্বে গ্রেপ্তার করতে হবে অভিযুক্তদের। প্রায় ১ ঘণ্টা থানা ঘেরাও করে বিক্ষোভ দেখান তাঁরা। পরে পুলিশের পরিস্থিতিতে সাময়িকভাবে পরিস্থিতি আয়ত্তে আসে।

তবে, সোমবার সকাল থেকে ফের উত্তপ্ত হয়ে ওঠে এলাকা। গোটা ঘটনায় নির্বাচন কমিশনের হস্তক্ষেপের দাবি জানিয়ে কাঁকিনাড়া স্টেশনের কাছে রেল লাইনে অবরোধ করেন বিজেপির কর্মীরা। যার জেরে বন্ধ হয়ে যায় শিয়ালদহ মেন শাখার ট্রেন চলাচল। অবিলম্বে অভিযুক্তদের গ্রেপ্তার করা না হলে অবরোধ চলবে বলে জানিয়েছেন বিক্ষোভকারীরা। পুলিশের তরফ থেকে আশ্বাস দেওয়া হয়েছে, গোটা ঘটনার তদন্ত করে অভিযুক্তদের শাস্তি দেওয়া হবে। তবে তৃণমূলের তরফে জানানো হয়েছে, ”গোটা ঘটনা ভিত্তিহীন। ভোটের আগে অপপ্রচার করছে বিজেপি।” তবে সপ্তাহের প্রথমদিনে রেল অবরোধের ফলে সমস্যায় যাত্রীরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.