পূর্ব নির্ধারিত সূচি মেনে শুক্রবার বারাণসীতে মনোনয়ন পেশ করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। হলফনামায় তিনি জানালেন, ২০১৪ সালের পর তাঁর সম্পত্তি বেড়েছে ৫২ শতাংশ। তাঁর মোট সম্পদের মূল্য ২ কোটি ৫১ লক্ষ টাকা। প্রধানমন্ত্রীর অফিস তাঁকে দিয়েছে ১ লক্ষ ৪০ হাজার ৮৯৫ টাকা। তাঁকে আয়কর দিতে হবে ৮৫ হাজার ১৪৫ টাকা।

২০১৪ সালে ভোটের আগে মোদী হলফনামা দিয়ে জানিয়েছিলেন, তাঁর সম্পদের পরিমাণ ১ কোটি ৬৫ হাজার টাকা। তখন তাঁর অস্থাবর সম্পত্তির পরিমাণ ছিল ৫১ লক্ষ টাকা। এখন তা বেড়ে হয়েছে ১ কোটি ৪১ লক্ষ টাকা। প্রধানমন্ত্রীর স্থাবর সম্পত্তির পরিমাণ ১ কোটি ১০ লক্ষ টাকা।

মোদীর রোজগারের প্রধান উৎস তাঁর বেতন ও ব্যাঙ্কে গচ্ছিত অর্থের ওপর পাওয়া সুদ। চলতি বছরের ৩১ মার্চ তাঁর হাতে নগদ অর্থ ছিল ৩৮ হাজার ৭৫০ টাকা। প্রধানমন্ত্রী জানিয়েছেন, তাঁর কোনও দায় নেই। স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়ার গুজরাতের গান্ধীনগর শাখায় তাঁর অ্যাকাউন্টে আছে ৪১৪৩ টাকা।

হলফনামায় মোদী বলেছেন, তাঁর বিরুদ্ধে কোনও ফৌজদারি মামলা নেই। আমেদাবাদে গুজরাত বিশ্ববিদ্যালয় থেকে তিনি এম এ ডিগ্রি পেয়েছেন।

বৃহস্পতিবার থেকে বারাণসীতে রয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। এদিন বিকালে তিনি শহরে রোড শো করেন। তারপর গঙ্গা আরতি করেন ও দু’টি জনসভায় ভাষণ দেন। শুক্রবার তিনি এসইউভি গাড়িতে চড়ে জেলা কালেক্টরের অফিসে মনোনয়ন জমা দিতে যান। তাঁকে অভ্যর্থনা জানাতে রাস্তার দু’ধারে জড়ো হয়েছিলেন বহু মানুষ। ৪৪ ডিগ্রি সেন্টিগ্রেড উত্তাপ উপেক্ষা করে যেভাবে হাজার হাজার মানুষ তাঁকে দেখার জন্য রাস্তায় জড়ো হয়েছিলেন, সেজন্য কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন মোদী। তিনি বলেন, বারাণসীর মানুষের কাছে তিনি কৃতজ্ঞ। তাঁরা আমাকে আশীর্বাদ করেছেন। পাঁচ বছর আগেও তাঁরা আমাকে আশীর্বাদ করেছিলেন।

একইসঙ্গে জনতাকে সতর্ক করে তিনি বলেন, কেউ কেউ এমন ধারণা সৃষ্টি করছেন যেন আমি জিতেই গিয়েছি। তাদের কথায় বিশ্বাস করবেন না। আপনারা ভোট দেবেন।

সংবাদ মাধ্যমকে ধন্যবাদ জানিয়ে তিনি বলেন, রিপোর্টাররাও বৃহস্পতিবার থেকে যথেষ্ট পরিশ্রম করছেন। আশা করি সকলে সুস্থ থাকবেন। না হলে আগামী দিনে এত কঠোর পরিশ্রম করতে পারবেন না।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.