কর্নাটকের পরে মধ্যপ্রদেশ। সপ্তাহ খানেক আগেই কর্নাটকের মুখ্যমন্ত্রী তথা জেডিএস নেতা এইচ ডি কুমারস্বামীর ঘনিষ্ঠদের বাড়িতে অভিযান চালায় আয়কর দফতর। তখন কুমারস্বামী এবং কংগ্রেসের তরফে অভিযোগ তোলা হয়েছিল, সরকারি প্রতিষ্ঠানকে রাজনৈতিক স্বার্থে ব্যবহার করছে বিজেপি। এবার মধ্যেপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী কমল নাথের ঘনিষ্ঠদের বাড়িতে আয়কর তল্লাশি। রবিবার সকাল থেকে চলছে তল্লাশি। সিআরপিএফ জওয়ানার ঘিরে রেখেছে মুখ্যমন্ত্রী কমল নাথের একাধিক প্রাক্তন এবং বর্তমান সহযোগীর বাড়ি।

কংগ্রেস নেতা তথা মুখ্যমন্ত্রী কমল নাথের প্রাক্তন ব্যক্তিগত সচিব প্রবীণ কক্করের ইনওর ও ভোপালের বাড়িতে তল্লাশিতে নগদ কোটি কোটি টাকা উদ্ধার হয়েছে বলেও জানা গিয়েছে। কমল নাথের প্রাক্তন উপদেষ্টা রাজেন্দ্র কুমার মিগলানির দিল্লির বাড়িতেওঠ তল্লাশি চালাচ্ছে আয়কর দফতর। শুধু কক্কর ও মিগলানির বাড়িতেই নয়, আরও বেশ কিছু জায়গায় আয়কর দফতরের অফিসাররা তল্লাশি চালাচ্ছেন। আয়কর দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে এই অভিযানে ন’কোটিরও বেশি নগদ টাকা উদ্ধার হয়েছে।

শনিবারই দিল্লি থেকে ইন্দোর যায় এক কোম্পানি সিআরপিএফ। রবিবার ভোর তিনটে নাগাদ শুরু হয় তল্লাশি অভিযান। আয়কর দফতরের ১৫ জন অফিসার ইন্দোরের বিজয়নগরে প্রবীণ কক্করের বাড়িতে যান। বাড়ির কাছেই একটি গ্যারাজ-সহ মোট ছয় জায়গায় তল্লাশি শুরু হয়ে এক সঙ্গে। প্রায় একই সময়ে দিল্লিতে আয়কর দফতরের আর একটি দল অভিযান চালায় নিগলানির বাড়িতে। সেখানেও একাধিক জায়গায় তল্লাশি চলে।

এ ছাড়া কমল নাথের অফিসার অন স্পেশাল ডিউটি রাতুল পুরীর এক ঘনিষ্ঠ সহযোগী প্রতীক যোশীর বাসভবনেও তল্লাশি হয়েছে রবিবার। প্রায় ৩০০ জন কর্মী ও অফিসার নিয়ে ভোপাল, ইন্দোর, দিল্লি, গোয়া-সহ দেশের মোট ৫০টি জায়গায় তল্লাশি চালাচ্ছে আয়কর দফতর।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.