শুধু সামরিক পথে নয়,কূটনৈতিক পদ্ধতিতেও পাকিস্তানকে ঘায়েল করার উদ্যোগ শুরু করেছে ভারত ইতিমধ্যেই। বিদেশ মন্ত্রক সূত্রে খবর পাকিস্তানকে হুঁশিয়ারি দিয়ে বলা হয়েছে “ভবিষ্যতে যদি কোন ধরনের জঙ্গি হামলা হয় আর তার উৎস যদি পাকিস্তান হয়ে থাকে তাহলে সব পথ খোলা আছে” অর্থাৎ আবার জঙ্গি হামলা হলে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে সামরিক অভিযানে যেতে পারে ভারত। সে কথাই স্পষ্ট করা হয়েছে।

অন্য দিকে কূটনৈতিক পথেও পাকিস্তানকে ঘায়েল করবে ভারত। ইতিমধ্যেই রাষ্ট্রপুঞ্জের নিরাপত্তা পরিষদে মাসুদ আজহার কে আন্তর্জাতিক জঙ্গি তকমা দেওয়ার দাবি জানানো হয়েছে। এছাড়া ফিনান্সিয়াল অ্যাকশন টাস্ক ফোর্সও পাকিস্তানের ওপর চাপ সৃষ্টি করার চেষ্টা চলছে। বন্ধু দেশ গুলি কি দিয়ে চাপ দেওয়া হচ্ছে যাতে পাকিস্তান লস্কর, জৈশের মত জঙ্গি সংগঠনের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে বাধ্য হয়।

মাসুদকে আন্তর্জাতিক জঙ্গি তালিকাভুক্ত করার ক্ষেত্রে চীন আর সম্ভবত বাধা হয়ে দাঁড়াবে না। এমনটাই সূত্র মারফত খবর। অন্যদিকে পাঁচ স্থায়ী সদস্য ছাড়াও নিরাপত্তা পরিষদে রয়েছে বেলজিয়াম, আইভরি কোস্ট, জার্মানি, ডোমিনিকান রিপাবলিক গিনি, ইন্দোনেশিয়া, কুয়েত পেরু, পোল্যান্ড এবং দক্ষিণ আফ্রিকা। এই কারণেই ভারত সুবিধা পাবে বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল।

ইতিমধ্যেই ফিনান্সিয়াল টাস্ক ফোর্স জানিয়ে দিয়েছে চলতি বছরের মে মাসের মধ্যে সন্ত্রাসবাদের পাকিস্তান বিরুদ্ধে কোন সক্রিয় ভূমিকা না নিলে বছরের শেষে পাকিস্তানকে ব্ল্যাকলিস্ট করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.