দেশজুড়ে খুলছে আরও আধার সেবা কেন্দ্র।

আধার সংক্রান্ত যে কোনও আপডেট এবং আধারে নাম নথিভুক্তিকরণের কাজ এবার আরও সহজ হতে চলেছে। ইউনিক আইডেন্টিফিকেশন অথরিটি অফ ইন্ডিয়া (UIDAI) এখন আরও বেশি আধার নথিভুক্তিকরণ এবং আপডেট করার কেন্দ্র খোলার পরিকল্পনা করছে। ইউআইডিএআই সম্প্রতি ঘোষণা করেছে যে এটি ভারতের ১২২ টি শহরে মোট ১৬৬ টি আধার সেবা কেন্দ্র চালু করবে।

এই আধার সেবা কেন্দ্রগুলিতে দেশের নাগরিকরা তাঁদের নতুন আধার কার্ডের জন্য আবেদন করতে পারবেন। কিংবা তাঁদের বর্তমান আধার কার্ডে কোনও পরিবর্তন করার হলে তা আরও সহজে আপডেট করতে পারবেন। এর পাশাপাশি কাজও অনেক দ্রুত হবে। কারণ, আরও আধার সেবা কেন্দ্র খোলা মানে আপনার আধার অ্যাপয়েন্টমেন্টও আরও দ্রুত পাবেন।

ইউআইডিএআই দেশের ১২২ টি শহরে ১৬৬ টি আধার নথিভুক্তকরণ এবং আপডেট কেন্দ্র খোলার যে পরিকল্পনা নিয়েছে, তার মধ্যে ৫৫ টি আধার সেবা কেন্দ্র ইতিমধ্যেই খোলা হয়ে গিয়েছে। এগুলি ছাড়া আগে থেকে যে ব্যাঙ্ক, ডাকঘর এবং রাজ্য সরকার দ্বারা পরিচালিত কেন্দ্রগুলিতে আধার আপডেট করা হত, সেগুলিও সমান তালে চলছে। এমন ব্যাঙ্ক, ডাকঘর কিংবা অন্যান্য কেন্দ্রের সংখ্যাও প্রায় ৫২ হাজার। এই আধার সেবা কেন্দ্রগুলি সপ্তাহের সব দিন খোলা থাকে। বিশেষভাবে সক্ষম ব্যক্তিদের আধার আপডেট করার ক্ষেত্রে কিংবা নতুন আধার কার্ড করার হলে এই আধার সেবা কেন্দ্রগুলিতে তাঁরা অনেক কম ঝক্কিতে তা করতে পারবেন। এখনও পর্যন্ত সব মিলিয়ে ৭০ লাখেরও বেশি নাগরিককে পরিষেবা দিয়েছে আধার সেবা কেন্দ্রগুলি।

এই আধার সেবা কেন্দ্রগুলির প্রতিটি মডেল কেন্দ্রল হিসেবে তৈরি করা হয়েছে। যেগুলি মডেল-এ সেবা কেন্দ্র নতুন আধার কার্ড এবং পুরানো কার্ডের আপডেট মিলিয়ে দিনে এক হাজারটি ‘রিকোয়েস্ট’ অনায়াসে সামলাতে পারে। মডেল-বি আধার পরিষেবা কেন্দ্রগুলি নতুন আধার কার্ড এবং পুরানো কার্ডের আপডেট মিলিয়ে প্রতিদিন ৫০০ টি রিকোয়েস্ট সামলাতে পারে। এবং মডেল-সি আধার সেবা কেন্দ্রগুলি নতুন আধার কার্ড এবং পুরানো কার্ডের আপডেট মিলিয়ে প্রতিদিন ২৫০ টি রিকোয়েস্ট সামলানোর ক্ষমতা রাখে।

এই আধার সেবা কেন্দ্রগুলি সকাল ৯ টা থেকে বিকাল সাড়ে ৫ টা পর্যন্ত চালু থাকে। কেবলমাত্র সরকারি ছুটির দিনে এগুলি বন্ধ থাকে। নতুন আধার তালিকাভুক্তি সম্পূর্ণ বিনামূল্যে করা যায় এখানে। তবে ডেমোগ্রাফিক আপডেটের জন্য ৫০ টাকা নেওয়া হয়। এবং বায়োমেট্রিক আপডেটের জন্য দিতে হবে ১০০ টাকা।

আধার সেবা কেন্দ্রের ‘অনলাইন অ্যাপয়েন্টমেন্ট সিস্টেম’ এবং ‘টোকেন ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম’ রয়েছে। এর মাধ্যমে নাগরিকরা নির্ঝঞ্ঝাটে নতুন আধার কার্ড এবং পুরানো কার্ডের আপডেট করতে পারবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.