তাজমহল এক সময় যে তেমহল নামে পরিচিত ছিল, সেটা হয়তো এখন অনেকেই জানতে পারছেন–#যমুনার দিকে একটি #বেসমেন্টে একটি কাঠের দরজা ছিল-আমেরিকান প্রফেসর মারভিন মিলস (Marvin Mills) ওই কাঠের দরজার এক টুকরো নিয়ে গিয়ে কার্বন টেস্ট পরীক্ষা করে দেখেন,#তাজমহল টি যে সময় স্থাপন করা হয় তার থেকেও আড়াইশো বছর পুরনো কাঠের দরজা টি–তখনকার লোকমহল এবং পত্রিকার মাধ্যমে জানাজানি হওয়ার জন্য সেই সময়কার ইন্ডিয়ান গভমেন্ট (ভারত সরকার) সঙ্গে সঙ্গে #1974 সালে ওই দরজাটি ভেঙে ফেলে ওখানে তড়িঘড়ি ইটের গাঁথুনি দিয়ে দেয়াল তৈরি করে সিল করে দেয়।

ইতিহাসে এই রকম ভারতবর্ষে কত হিন্দু মন্দির, হিন্দু বৈঠকখানা, হিন্দু রাজার বাড়ি, হিন্দু রাজপ্রাসাদ গুলো সহ বিভিন্ন স্থান গুলিকে মোঘলরা জোর জুলুম করে মসজিদ এবং মহল বানিয়েছিল–যেমন তাজমহল কে শাজাহান দখল করেছিল–আজকের দিনে আমরা সব আস্তে আস্তে জানতে পারছি, ইতিহাসের বইয়ের পাতায় অনেক কিছুই লুকিয়ে রাখা হয়েছে বা আমাদের কাছ থেকে চেপে রাখা হয়েছিল অথবা সেই সব সত্য ঘটনা নিয়ে ইতিহাস লেখা হয়নি! আমাদের সারা জীবন অন্ধকারে রেখে দেওয়া হয়েছিল বা এখনো অনেক সত্য ঘটনা থেকে দূরে সরে আছি যা আমাদের জানা বাকি আছে, সেই সবকিছু উদ্ধারের প্রয়োজন আছে,তাই সত্য সবার সামনে আসুক।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.