মাসুদের সঙ্গে দলাই লামার তুলনা টেনে সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্রোলড পাক সাংবাদিক

দলাই লামা, ১৯৮৯ সালে শান্তির জন্য নোবেল পুরস্কার পেয়েছিলেন৷ অপরদিকে মাসুদ আজহার যাকে রাষ্ট্রসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের চারটি স্থায়ী দেশ আন্তর্জাতিক জঙ্গির তকমা দিতে রাজি৷ সেই মাসুদ আজহারের সঙ্গে দলাই লামার তুলনা টেনেছেন পাকিস্তানের এক বরিষ্ঠ সাংবাদিক হামিদ মীর৷ যার চোখে দলাই লামা ও মাসুদ আজহারের মধ্যে কোনও ফারাক চোখে পড়েনি৷

পুরানো একটি খবরের হেডলাইন ট্যুইট করে ওই সাংবাদিক লেখেন, মাসুদ আজহারকে আন্তর্জাতিক জঙ্গি তকমা দেওয়ার পথে বাধা তৈরি করেছে চিন৷ এর কারণ খুব স্পষ্ট৷ কারণটা হল ভারত চিনের দীর্ঘদিনের শত্রু দলাই লামাকে দশকের পর দশক ধরে আশ্রয় দিয়ে চলেছে৷ কোনও একসময়ে আন্তর্জাতিক মিডিয়ায় দলাই লামা টেররিস্ট শীর্ষক খবর বের হয়৷ পাক সাংবাদিক সেই খবরটি ট্যুইট করে শেয়ার করেন৷

১৯৫৯ সাল থেকে তিব্বত দখলে নেয় চিন৷ তারপর থেকে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন তিব্বতী নেতা দলাই লামা৷ ভারত তাঁকে আশ্রয় দেয়৷ বৌদ্ধদের ধর্মগুরু দলাই লামা তিব্বতে শান্তিরক্ষার ক্ষেত্রে অবদানের জন্য নোবেল শান্তি পুরস্কার পান৷ এমন এক ধর্মগুরুকে মাসুদ আজহারের মতো জঙ্গির সঙ্গে তুলনা করে সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রবল সমালোচিত হন ওই সাংবাদিক৷ অনেকে তাঁর সাংবাদিক হওয়ার যোগ্যতা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন৷

কেউ কেউ লেখেন, মাথা ঠিক না থাকলে দলাই লামার সঙ্গে মাসুদ আজহারের তুলনা করবে না৷ আরও একজন লেখেন, শান্তিপ্রিয় মানুষকে জঙ্গির সঙ্গে তুলনা করাতেই বোঝা যায় কেন পাকিস্তান গরিব দেশ৷ পাকিস্তান তাদের ভিক্ষার পাত্র নিয়ে চিন আর সৌদির সামনে দাঁড়িয়ে থাকুক৷ দেখুন ট্যুইট গুলি৷

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.