নির্বাচন কমিশন জানিয়ে দিয়েছে, বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন হলেও নিশ্চিত করতে হবে ওদের ভোটাধিকার৷ আর তাই প্রয়োজন প্রচুর হুইল চেয়ার৷ পূর্ব বর্ধমান লোকসভার মধ্যে বড় সংখ্যার বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন বোটারদের ভোটকেন্দ্র অবধি নিয়ে আসার জন্য প্রোয়জনীয় হুইল-চেয়ারের ব্যবস্থা করতে হিমসিম খাচ্ছে জেলা প্রশাসন৷

পূর্ব বর্ধমান লোকসভা কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ হবে চতুর্থ দফায় অর্থাৎ ২৯ এপ্রিল৷ এই অল্প সময়ের মধ্যে ১৪ হাজার ৫৫৬ জন বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন ভোটারদের মধ্যে প্রয়োজনীয়দের জন্য হুইল চেয়ার জোগাড় করতে বেগ পেতে হচ্ছে জেলা প্রশাসনকে৷ কারণ প্রয়োজনীয় হুইল চেয়ার এই মূহূর্তে জেলা প্রশাসনের কাছে নেই৷ তাই এই সমস্ত মানুষকে ভোটকেন্দ্রে নিয়ে যাবার জন্য জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে জেলার বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা এবং সাধারণ মানুষের কাছে সাহায্যের আবেদন জানানো হয়েছে৷

পূর্ব বর্ধমান জেলাশাসক অনুরাগ শ্রীবাস্তব জানিয়েছেন, নির্বাচন কমিশনের নির্দেশ অনুসারে প্রতিটি ভোটারকে ভোটদানে সহায়তা করার জন্য জেলা প্রশাসন সর্বতোভাবে তৈরী রয়েছে৷ কিন্তু সমস্যা দেখা দিয়েছে হুইল চেয়ার নিয়ে৷ প্রতিটি বুথে হুইল চেয়ার রাখার মত পর্যাপ্ত হুইল চেয়ার জেলা প্রশাসনের কাছে নেই৷

তিনি আরও জানান,এজন্য জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার পাশাপাশি সাধারণ মানুষকেও হুইল চেয়ার দেবার আবেদন জানানো হয়েছে৷ তাঁরা আবেদন করেছেন ভোটের প্রয়োজনে কেউ যদি হুইল চেয়ার দেন, ভোট মিটে গেলে তাদের তা আবার ফেরত দেওয়া হবে৷

উল্লেখ্য, শুক্রবারও জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে জেলার বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন ভোটার তথা বিশেষ সক্ষম ভোটারদের এই সমস্ত সমস্যা নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়৷ কোন কোন বুথে কি কি ধরণের বিশেষ সক্ষম ভোটার রয়েছে তার একটি তালিকাও তৈরী করা হয়েছে বলে জেলাশাসক জানিয়েছেন৷

পূর্ব বর্ধমান জেলার প্রায় ১৪ হাজার ৫৫৬ জন বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন ভোটারের জন্য হুইল চেয়ার জোগাড় করতে হিমসিম খাচ্ছে পূর্ব বর্ধমান জেলা প্রশাসন। এবছর কেন্দ্রীয় নির্বাচন কমিশন এই বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন ভোটারদের ভোটদানকে নিশ্চিত করার নির্দেশ দিয়েছেন। আর সেই নির্দেশ পালন করতে গিয়ে রীতিমত কালঘাম ছুটছে পূর্ব বর্ধমান জেলা প্রশাসনের।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.