ঘাটাল লোকসভা কেন্দ্রের সব থেকে বড় সমস্যা নিকাশি পরিষেবা। একটু বৃষ্টি হলেই জল জমে যায়। নিকাশির সুব্যবস্থা না থাকায় প্রতিবছর বর্ষায় জলবন্দি হয়ে পড়েন এলাকার মানুষ। দীর্ঘদিন ধরে ঘাটাল মাস্টার প্ল্যান গড়ে তোলার ঘোষণা করা হলেও আজও তা বাস্তবায়িত হয়নি। ভোট এলেই সমস্যা দূর করার কথা বলা হলেও তার বাস্তব রূপ পায়না। তাই এলাকার মানুষের মধ্যে ক্ষোভ রয়েছে।

ঘাটাল লোকসভা তৃণমূলের প্রার্থী দীপক অধিকারী। যদিও বাংলার মানুষদের কাছে তিনি শুধুই “দেব” নামে পরিচিত। গতবার পশ্চিম মেদিনীপুরের ঘাটাল লোকসভা থেকে তিনি প্রথমবার তৃণমূলের টিকিটে সাংসদ হয়েছিলেন।

এবার দ্বিতীয়বারের জন্য তাঁর ওপরেই আস্থা রেখেছেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ইতিমধ্যে তৃণমূলের পক্ষ থেকে দল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রাজ্যের ৪২ টি আসনে প্রার্থীর নাম ঘোষণা করে দিয়েছেন। কিন্তু বিরোধী প্রার্থীদের নাম ঘোষণার আগেই স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্ব কোমর বেঁধে দেবের প্রচারে নেমে পড়েছেন। দেবের প্লাস পয়েন্ট পশ্চিম মেদিনীপুরের ঘাটাল লোকসভা কেন্দ্রের অন্তর্ভুক্ত সাতটি বিধানসভাই রাজ্যের শাসকদল তৃণমূলের দখলে।

ঘাটাল মাস্টার প্ল্যান নিয়ে স্থানীয়দের মধ্যে চাপা ক্ষোভ থাকলেও ঘরের ছেলে দেবের পাশেই থাকতে চায়। কারণ দেব এলাকার ছেলে হয়ে বাংলা তথা দেশে এলাকার মানকে সামনের সারিতে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে চলেছেন।

২০১৪ সালে দেব ঘাটাল লোকসভা থেকে দুই লক্ষ ৬০ হাজার ৮৯১ টি ভোটে জয়লাভ করেছিলেন। পাঁচ বছরের এলাকার উন্নয়নের খতিয়ান বই আকারে মানুষের সামনে তুলে দিতে চান ঘাটাল লোকসভার দ্বিতীয়বারের জন্য তৃণমূলের প্রার্থী দীপক অধিকারী ( দেব)। স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্বের দাবি ২০১৪ সালের থেকে এবার অনেক বেশি ভোট বাড়বে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.