সোমবার বিকেলে রুটিন সাংবাদিক বৈঠক থেকে আসানসোলের বিজেপি প্রার্থী বাবুল সুপ্রিয়র বিরুদ্ধে এফআইআর-এর কথা বলেছিল রাজ্য নির্বাচন কমিশন। সেই সঙ্গে বরাকর ফাঁড়িতে বাবুলের অভিযান নিয়ে, পশ্চিম বর্ধমান জেলা প্রশাসনের কাছে রিপোর্টও তলব করেছিল কমিশন। কিন্তু এক দিন পরেই জানা গেল, সেই এফআইআর-এর খবরের নাকি কোনও সত্যতা নেই। এ নিয়ে রাজ্যের অতিরিক্ত মুখ্য নির্বাচন আধিকারিক সঞ্জয় বসুর অপসারণের দাবি তুলল বিজেপি।

বিজেপি নেতা জয়প্রকাশ মজুমদারের দাবি, “সাংবাদিকদের সামনে বাবুল সুপ্রিয়র বিরুদ্ধে এফআইআর-এর কথা বলা হলেও, পরে কমিশনের তরফে আমাদের কাছে দুঃখপ্রকাশ করা হয়।” একই সঙ্গে রাজ্য বিজেপির অন্যতম মুখপাত্র জয়প্রকাশ বাবু বলেন, “এই মন্তব্যে বাবুল সুপ্রিয়কে ‘ইলেক্টোরাল ড্যামেজ’ করা হয়েছে। আমরা দাবি জানিয়েছি, অবিলম্বে সঞ্জয় বসুকে সরাতে হবে।”

এ ব্যাপারে সঞ্জয় বসুর প্রতিক্রিয়া জানার জন্য একাধিক বার তাঁকে ফোন করা হয়। কিন্তু তাঁর ফোন তত বারই ব্যস্ত থাকায় কথা বলা যায়নি। হোয়াটসঅ্যাপে টেক্সট করা হলেও মঙ্গলবার রাত পর্যন্ত জবাব মেলেনি। তাঁর প্রতিক্রিয়া পাওয়া গেলে এই প্রতিবেদনে আপডেট করা হবে।

সোমবার কমিশনের তরফে বলা হয়েছিল, বাবুলের প্রচার গান এবং মিছিলে কমিশনের ক্যামেরাম্যানকে বাধা দেওয়ার অভিযোগে বাবুলের বিরুদ্ধে এফআইআর করা হবে। কিন্তু তা নাকি একেবারেই ঠিক নয়। বাবুলও ঘনিষ্ঠ মহলে এ নিয়ে কমিশনের বিরুদ্ধে তীব্র ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.