ঘাটালের সাংসদ বিগত পাঁচ বছরে তার নির্বাচনী ক্ষেত্রে পাঁচবারও আসেনি তাই সেখানে কোন কাজ হয়নি বলে অভিযোগ করলেন ওই কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী ভারতী ঘোষ। বুধবার একটি বেসরকারি লজে ডেবরা ব্লকের দলীয় কর্মীদের সঙ্গে বৈঠক করেন ভারতী ঘোষ। বৈঠকের পর সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে তিনি বলেন, ঘাটালের সাংসদ গত পাঁচ বছরে এলাকায় আসেন নি। জনপ্রতিনিধিকে তাই এলাকার মানুষ দেখতে পাননি। মানুষের আপদে-বিপদে পাশে দাঁড়াননি তিনি। এছাড়া কেন্দ্র সরকারের কোনো যোজনা ঘাটালে আসেনি। ঘাটাল মহকুমার বন্যা প্রতিরোধে ঘাটাল মাস্টার প্ল্যানের কথা সবাই ভুলে গেছেন।

ভারতী ঘোষ বলেন, ঘাটাল দাসপুর এলাকা সোনার ব্যবসার জায়গা। এই অঞ্চলে একটি গোল্ড হাব তৈরি হলে ব্যবসায়ীদের সুবিধা হবে। এছাড়াও শাকসবজি সংরক্ষিত করার জন্য স্টোরেজের ব্যবস্থা হলে এলাকার কৃষকরা উপকৃত হবেন। এগুলো আগেই হওয়া উচিত ছিল কিন্তু এলাকার সাংসদ পাঁচ বছর না আসায় মানুষ বঞ্চিত হয়েছে। ভারতী ঘোষ অভিযোগ করেন, বিজেপির নারী মোর্চার সদস্যদের লাঞ্ছিত হতে হচ্ছে। থানায় কোনো অভিযোগ নেওয়া হচ্ছে না। তৃণমূল দলের কথায় চলছে পুলিশ। মানুষ কথা বলতে সাহস পাচ্ছে না। এইসব নির্বাচন কমিশনে জানাবো। মানুষের ভোট দেওয়ার মৌলিক অধিকার যাতে রক্ষা হয় সেজন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে কমিশনে আর্জি জানানো হবে। ভারতী ঘোষ সাংবাদিকদের মুখোমুখি হওয়ার পর ডেবরার দলীয় কার্যালয় হয়ে এসে পৌঁছান সংঘ পরিবারের প্রধান মুকুলজি। তিনি প্রার্থী ভারতী ঘোষ ও কর্মীদের নিয়ে কার্যালয়ে রুদ্ধদ্বার বৈঠক করেন।

ভারতী ঘোষের অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে ঘাটালের সাংসদ দেবের প্রতিনিধি অলোক আচার্য বলেন, ভারতি দেবী সঠিক তথ্য জানেন না। ঘাটাল সংসদ এলাকায় কি কি উন্নয়ন মূলক কাজ হয়েছে তা  কয়েকদিনের মধ্যেই পুস্তিকা আকারে জনসাধারণকে জানানো হবে। তাছাড়া জেলা প্রকল্প আধিকারিকের কাছ থেকেও ভারতি দেবী সেই তথ্য জেনে নিতে পারবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.