দল বদল করে একদা সহযোদ্ধা অনুব্রত মণ্ডলকে আক্রমণ করলেন বারাকপুরের দাপুটে নেতা তথা বিজেপি প্রার্থী অর্জুন সিং। অনুব্রতঅর সঙ্গে টক্কর দিতে বীরভূম জেলে বিজেপির দায়িত্ব নিতে তিনি প্রস্তুত রয়েছেন বলে জানিয়েছেন অর্জুন।

সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচনের আগে জমে উঠেছে বিভিন্ন পক্ষের পারস্পরিক আক্রমণ। সেই তালিকায় এখন জড়িয়ে লড়েছেন যুযুধান দুই রাজনৈতিক দলের নেতা অনুব্রত মণ্ডল এবং অর্জুন সিং। তাঁর দল বদলকে কটাক্ষ করেছিলেন অনুব্রত। পালটা তৃণমূলের বীরভূম জেলা সভাপতিকে কাগুজে বাঘ বলেছিলেন অর্জুন।

উল্লেখযোগ্য বিষয় হচ্ছে এই দুই ব্যক্তিই একসময়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিশ্বস্ত যোদ্ধা ছিলেন। যে যাত্রাপথ শুরু হয়েছিল মমতা বন্দ্যপাধ্যায় কংগ্রেসনেত্রী থাকাকালীন। কালের নিয়মে অনুব্রত এখনও তৃণমূলে রয়েছেন। কিন্তু দল বদল করে বিরোধী শিবিরে নাম লিখিয়েছেন অর্জুন। নতুন দলে গিয়ে বারাকপুর কেন্দ্রের প্রার্থীপদও পেয়েছেন তিনি।

এই দল বদলের পর থেকেই দুই নেতার মধ্যে শুরু হয়েছে বাগযুদ্ধ। শুক্রবার অর্জুন সিং অনুব্রত মণ্ডল প্রসঙ্গে সাংবাদিকদের বলেন, “অনুব্রত মন্ডল কাগজের বাঘ। ও আসল বাঘ নয়। আমাকে দল আগামীদিনে বীরভূমের দ্বায়িত্ব দিলে আমি প্রমাণ করে দেব ও কাগজের বাঘ। ওর কোন গুরুত্ব নেই।” একই সঙ্গে তিনি আরও বলেন, ” আমি কোন বাঘ নিই, আমি অর্জুন সিং।”

অনুব্রত মণ্ডল বিভিন্ন জনসভায় নকুল দানা খাওয়ানো ও পাচন দাওয়াই দেওয়ার কথা প্রকাশ্যেই বলেন। অর্জুন সিং অনুব্রতর নকুল দানা তত্ত্বের পাল্টা উত্তর দিয়ে সাংবাদিকদের বলেছিলেন, “যে যতই নকুলদানার কথা বলুন নকুল দানার উপর এক ফোঁটা জল দিয়ে দিলে নকুলদানার আকার বদলে যাবে।”

শুক্রবার উত্তর ২৪ পরগনার বারাকপুর প্রশাসনিক ভবনে ব্যারাকপুরের মহকুমা শাসক আবুল কালাম আজাদ ইসলামের সঙ্গে দলীয় কর্মীদের আক্রান্ত হওয়ার বিষয় নিয়ে দেখা করে অভিযোগ জানাতে এসে সাংবাদিকদের এই কথাই বললেন ব্যারাকপুরের বিজেপি প্রার্থী অর্জুন সিং। দেওয়াল লিখন নিয়ে প্রশাসনিক কর্তাদের তোপ দেগে ব্যারাকপুরের বিজেপি প্রার্থী হুশিয়ারি দেন, “আমি যদি মনে করি তৃণমূল কংগ্রেস কে একটাও দেওয়াল লিখতে দেব না। আমি দ্বায়িত্ব নিয়ে বলছি একথা। কিন্তু আমি অশান্তি চাই না। প্রশাসন শুধু ওদের পক্ষেই কাজ করছে । আমাদের অভিযোগের বিষয়ে কোন গুরুত্ব দিচ্ছে না। প্রশাসনকে নিরপেক্ষ ভূমিকা নিয়ে কাজ করতে হবে।”


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.