হুগলি.শিল্পাঞ্চলে চটকল নিয়ে কোনও গন্ডগোল হলেই নাম উঠত তাঁর। অনেকে বলতেন, “অর্জুন ভাইয়া হ্যায়! দেখ লেঙ্গে।” কিন্তু তখন অর্জুন ছিলেন তৃণমূল নেতা। কিন্তু এখন তিনি ব্যারাকপুরে বিজেপি-র ‘তারকা’ প্রর্থী। সেই অর্জুনই রবিবার এলেন হুগলির রিষড়ায়। বিজেপি প্রার্থীর সমর্থনে চারবাতি মোড়ে জনসভা শেষে তীব্র আক্রমণ শানালেন যুব তৃণমূল সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে।

তাঁর স্ত্রী নিয়ম-বহির্ভূত সোনা আনতে গিয়ে বিমানবন্দরে ধরা পড়েছেন বলে যে খবর রটেছিল, তা যে ডাহা মিথ্যে, সেটা বোঝাতে রবিবার আমতলায় নিজের নির্বাচনী অফিসে দীর্ঘ ‘ব্যক্তিগত’ সাংবাদিক সম্মেলন করেন অভিষেক। সন্ধে বেলা অর্জুন বলেন, “জরুর ডাল মে কুছ কালা হ্যায়! নাহলে যুবরাজ এ ভাবে সাফাই দিতেন না।”

এ দিন অভিষেক তাঁর স্ত্রীর বিরুদ্ধে ওঠা সমস্ত অভিযোগকে সর্বৈব মিথ্যে বলে দাবি করেছেন। একই সঙ্গে দাবি জানিয়েছেন, সিসিটিভি ফুটেজ প্রকাশ্যে আনার। বিরোধীদের তরফেও একই দাবি জানানো হয়েছে। বিজেপি-র স্বপন দাশগুপ্ত থেকে সিপিএমের সুজন চক্রবর্তী, সকলেই বলেছেন ফুটেজ সামনে এলেই ওই রাতে কী হয়েছিল সবটা পরিষ্কার হয়ে যাবে।

তবে তাৎপর্যপূর্ণ হলো এই যে, শুধু ব্যারাকপুর নয়, অর্জুনকে বাইরের জেলাতেও প্রচারে ব্যবহার করতে শুরু করল বিজেপি। বিজেপি সূত্রের খবর, হিন্দিভাষী এলাকায় বেশি করে ব্যবহার করা হবে ভাটপাড়ার ‘স্ট্রং ম্যান’কে। পর্যবেক্ষকদের মতে, অর্জুন যদি তৃণমূলের বিরুদ্ধে কথা বলেন, সেটা সাধারণ ভোটারের কাছে অনেক প্রাণবন্ত ও বিশ্বাসযোগ্য হবে। সেটাকেই কাজে লাগাতে চাইছে বিজেপি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.