ভোটের মরসুমে কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মীদের জন্য সুখবর। চলতি অর্থবর্ষেই লাগু হতে চলেছে সপ্তম পে কমিশন। যার আওতায় কর্মচারীদের নূন্যতম বেতন বাড়াতে চলেছে সরকার। প্রসঙ্গত, তাঁদের নূন্যতম আয়ে ২৬০০০ টাকার বৃদ্ধি দাবি করেছিলেন কর্মচারীরা। জানা গিয়েছে, শেষ পর্যন্ত কেন্দ্র ১৮০০০ টাকা বৃদ্ধির সুপারিশ মঞ্জুর করেছে। একইসঙ্গে বাকি বকেয়াও মিটিয়ে দেওয়া হবে বলে জানানো হয়েছে সংশ্লিষ্ট  মন্ত্রকের তরফে। বিজ্ঞপ্তি দিয়ে এখবর জানিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার।

উল্লেখ্য, এই নির্দেশিকা লাগু হলে নয় লক্ষ কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মচারীর নূন্যতম আয়ে বৃদ্ধি হবে। তৃতীয় পে কমিশনের প্রস্তাবিত সুপারিশ অনুযায়ী, দিন কয়েক আগেই বিএসএনএল-এর কর্মচারীরা বেতন বৃদ্ধি, পদোন্নতি এবং পেনশনের টাকার পুনর্বিবেচনার দাবিতে বিক্ষোভ দেখিয়েছিলেন। প্রতি ১০ বছরে বিএসএনএল-এর কর্মীরা এই সুবিধা পান। বিএসএনএল-এর বিক্ষোভের জেরেই পদক্ষেপ নিল কেন্দ্র। সূত্রের খবর, আগামী বাজেট অধিবেশনে তাদের ওই দাবি নিয়ে আলোচনা হবে। বিএসএফ, সিআইএসএফ, আইটিবিপি, সার্ভিস সিলেকশন বোর্ড বা এসএসবি, রেল, আইটিএস এবং বিএসএনএল-এর ডেপুটেশনে থাকা কর্মীদের বেতনবৃদ্ধি হতে চলেছে।

পাশাপাশি পার্সোনেল, পাবলিক গ্রিভান্সেস অ্যান্ড পেনশন বিভাগ থেকেও আলাদা নির্দেশিকা জারি হয়েছে। সেখানে পাঁচ দফা ভাতায় বৃদ্ধির উল্লেখ করা হয়েছে। যেমন, পিএইচডি বা সমস্তরের ডিগ্রিধারী কর্মীরা এবার থেকে ৩০০০০ টাকা করে ভাতা পাবেন। একবছরের বেশি বা সমসময়ের স্নাতকোত্তর ডিগ্রি বা ডিপ্লোমাধারী কর্মীরা পাবেন ২৫০০০ টাকা ভাতা। একবছরের কম বা সমসময়ের স্নাতকোত্তর ডিগ্রি বা ডিপ্লোমাধারী কর্মীরা পাবেন ২০০০০ টাকা ভাতা। তিন বছরের স্নাতক বা সমস্তরের ডিগ্রি বা ডিপ্লোমাধারী কর্মীরা পাবেন ১৫০০০ টাকা ভাতা। তিন বা কম সময়ের ডিগ্রি বা ডিপ্লোমাধারী কর্মীরা পাবেন ১০০০০ টাকা ভাতা।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.