হিন্দু-মুসলিম তিক্ততার জন্য বামপন্থীরাই দায়ী। অসমের মুখ্যমন্ত্রীর হুঁশিয়ারি।

হিন্দু-মুসলিম তিক্ত সম্পর্কের জন্য বাম উদারপন্থীরাই দায়ী বলেই মনে করেন অসমের মুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্ব শর্মা। এর পাশাপাশি কংগ্রেসকেও এক আক্রমণ করেন তিনি। ভোট ব্যাঙ্কের কথা মাথায় রেখেই কংগ্রেস এই ধরনের কার্যকলাপকে প্রশ্রয় দিয়েছে বলেই জানিয়েছেন তিনি। গুয়াহাটিতে বীর সাভারকারের ওপর লেখা একটি বই সংক্রান্ত আলোচনায় উপস্থিত ছিলেন অসমের মুখ্যমন্ত্রী। সেখানেই এই মন্তব্য করেন তিনি। একই সঙ্গে নিজের বক্তব্যে, বর্তমান পরিস্থিতিতে সাভারকারের প্রাসঙ্গিকতাও ব্যখ্যা করেন হিমন্ত।

স্বাধীনতার পর থেকে ভারতে পড়াশুনার যাবতীয় সিলেবাস উদার বামপন্থীদের হাতে তৈরি। তারাই মানুষে মানুষে লড়াই করতে শিখিয়েছে বলে অভিযোগ করেন অসমের মুখ্যমন্ত্রী। স্বামী বিবেকানন্দ, শ্রীমন্ত শঙ্করদেব, লাচিত বোরফুকানের মতো মহান ব্যক্তিদের স্কুল পাঠ্যক্রমে পর্যাপ্তভাবে পড়ানো উচিৎ ছিল বলেই জানিয়েছেন হিমন্ত বিশ্ব শর্মা। কারণ এদের কথা বেশি করে পড়লে জীবন সম্পর্কে সকলের ধারণাই বদলে যেত বলে মনে করেন তিনি।

তিনি জানিয়েছেন, কোনও ধর্মকে মেনে চলতে হলে মানুষে মানুষে খুনোখুনি করার কোনও বাধ্যবাধকতা নেই। এর পরেই বীর সাভারকারের প্রসঙ্গ টেনে এনে তিনি জানিয়েছেন, সাভারকর নতুন ভারতের স্বপ্নে দেখেছিলেন যেখানে সকলের সমান অধিকার থাকবে। পাশাপাশি তিনি দেশভাগেরও বিরোধিতা করেছিলেন। অসমের মুখ্য়মন্ত্রী বলেন, দেশকে ভালবাসলে দেশের উন্নয়নকে প্রাধান্য দিতে হবে।

সাভারকারের জীবনের ওপর কাছ থেকে নজর রাখলে দেখা যাবে দেশের প্রতি তাঁর নিদারুণ ভালবাসা ও শ্রদ্ধা ছিল, জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি আরও বলেন দেশের যুব সমাজকে, দেশের ইতিহাস ও সংস্কৃতি সম্পর্কে দ্রুত সচেতন করার প্রয়োজনীয়তা রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.