রাষ্ট্রসংঘে গ্লোবাল টেরোরিস্ট ঘোষিত হতে চলেছে মাসুদ আজহার

১লা মে ২০১৯ জাতিসংঘে(ইউএন) ইসলামী রাষ্ট্র(আইএসআইএস) ও আল-কায়েদার উপর নিষেধাজ্ঞা বিষয়ক কমিটিতে পাকিস্তান ভিত্তিক জয়েশ-ই-মহম্মদ (জেইএম) প্রধান মাসুদ আজহারকে কালো তালিকাভুক্ত করার বিষয়ে চীন তার পুরানো অবস্থান থেকে সরে যেতে পারে আশা করা হচ্ছে বলে জানিয়েছে হিন্দুস্তান টাইমস।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, ফ্রান্স এবং যুক্তরাজ্য  দ্বারা উত্থাপিত প্রস্তাবে বেজিংয়ের পদক্ষেপ বাস্তবায়িত হলে, এটি আজহারের নিষিদ্ধ গ্রুপের বিরুদ্ধে বিশ্ব জুড়ে আর্থিক নিষেধাজ্ঞার বাস্তবায়নের পথকে প্রস্তুত করবে।

পুলওয়ামায় ৪০ জন ভারতীয় সেনা সদস্যকে হত্যা করতে জয়েশ-ই-মহম্মদ (জেইএম) ফেব্রুয়ারি মাসে আত্মঘাতী বোমা হামল চালায়। তার কয়েক দিন পর, জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের(ইউএনএসসি) স্থায়ী সদস্য তথা ভারতের কৌশলগত অংশীদার ফ্রান্স,মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্যের সমর্থনে , জাতিসংঘের নিষেধাজ্ঞায় অনুমোদন সংক্রান্ত ১২৬৭ কমিটিতে আজহারকে একটি বিশ্বব্যাপী সন্ত্রাসী হিসাবে চিহ্নিত করার প্রস্তাব দিয়েছে।

যদিও ১৩ই মার্চ, চীন প্রস্তাবটিকে স্থগিত করার চতুর্থ দৃষ্টান্ত স্থাপন করে বলেছিল, বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করার জন্য আরও সময় লাগবে এবং এই মর্মে ঐক্যমতে পৌঁছাতে হবে। এই ঘটনা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সহ অন্যান্য প্রধান বিশ্ব শক্তিকে কিছুটা বিরক্তির মধ্যে ফেলেছিল বলে মনে করা হয়।কারণ জাতিসংঘের সদস্যদের মধ্যে আজহারকে তালিকাভুক্ত করার খসড়া প্রস্তাবটি সম্প্রসারিত করে তারা চীনকে বাধ্য করতে চেয়েছিল।গত সপ্তাহে যুক্তরাজ্যের হাইকমিশনার ডমিনিক অ্যাসকুইথ সাংবাদিকদের জানান, আজহারের বিশ্ব সন্ত্রাসী তালিকায় অন্তরভুক্তি সম্পর্কে দেশটি আশাবাদী ছিল। এছাড়াও,

গত সপ্তাহে ভারত সফরের সময় দক্ষিণ ও মধ্য এশিয়ায় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রধান উপ-সহকারী সচিব অ্যালিস ওয়েলস তার ভারতীয় প্রতিপক্ষকে স্বল্প মেয়াদের মধ্যেই আজহারের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার তাদের পরিকল্পনার কথা জানিয়েছিলেন।এখন যদি চীন তার অবস্থানকে সহজ করে এবং এই মুহুর্তে প্রস্তাবনার স্থগিত প্রত্যাহার করে নেয় তবে এটি মোদি সরকারের জন্য একটি বড় জয় হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.