শ্রীলঙ্কার পর ভারতের ধর্মীয় স্থান জঙ্গি টার্গেটে,বেনারসের মন্দির, অযোধ্যা রামজন্মভূমি সহ যোগী,কেজরিওয়াল ভাগবতের নাম তালিকায়

শ্রীলঙ্কার পর এবার ভারতূ বিভিন্ন ধর্মীয় স্থান টার্গেট করেছে জঙ্গিরা। তবে শুধু ধর্মীয় স্থান নয় বেশকিছু রেলস্টেশন ও বেশ কয়েকজন হেভিওয়েট রাজনৈতিক ব্যাক্তি ও জঙ্গিদের টার্গেট।

ফের জঙ্গি হামলা হতে পারে দেশের বেশকিছু জায়গায়। এমনটাই জানাল উত্তর প্রদেশ পুলিশ। ভোটের মাঝখানেই হতে পারে এই জঙ্গি হামলা। জৈশ ই মহম্মদ জঙ্গিগোষ্ঠী গুরুত্বপূর্ণ, রেল স্টেশন সহ দিল্লি, হরিয়ানা উত্তরপ্রদেশ এর বেশ কিছু ধর্মীয় স্থানে জঙ্গি হামলা করতে পারেবলে জানিয়েছে। জারি করা হয়েছে হাই এলার্ট। একইসঙ্গে জঙ্গিদের এবারের টার্গেট উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ,দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল,আরএসএস এর প্রধান মোহন ভাগবতের মত হেভিওয়েট রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বরা।

জঙ্গি হামলার খবরের সত্যতা স্বীকার করেছে উত্তর প্রদেশের ডিজিপি ও পি সিং। গত ২১ এপ্রিল হাতে লেখা দুটি হুমকির চিঠি রেল স্টেশনে পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন ডিজিপি।

ওই দুটি চিঠির বক্তব্যই এক বলে জানিয়েছে রাজ্য পুলিশের এক আধিকারিক।হামলা হতে পারে বারানসি বিশ্বনাথ মন্দির কিংবা অযোধ্যা রাম জন্মভূমি স্থানে। এছাড়াও উত্তরপ্রদেশের সামলি রুরকি ও উত্তর প্রদেশের পশ্চিম দিকে বেশ কিছু রেল স্টেশনেও হামলার হুমকি দেওয়া হয়েছে ওই চিঠিতে। যদিও ওই দুটি মন্দির ছাড়াও আরও বেশ কিছু দিল্লি ও হরিয়ানার মন্দিরের কথাও উল্লেখ রয়েছে ওই হুমকির চিঠিতে।

এর আগে ১৯এপ্রিল রেলের একাধিক উচ্চপদস্থ আধিকারিক এই হুমকি চিঠি পেয়েছিলেন। তারপর আবারো একুশে এপ্রিল দ্বিতীয়বার এই হুমকি চিঠি এসেছে। চিঠিতে জৈশের এরিয়া কমান্ডার মনসুর আহমেদের নাম উল্লেখিত রয়েছে।

একই রকম চিঠি এসেছে রেলের ফিরোজপুরের ডিআরএমের কাছেও। সেখানে বলা হয়েছে ফিরোজপুর, ফরিদকোট, অমৃৎসর, বারনালা স্টেশনে হামলা হবে। হুমকির চিঠি আসার পরই এ স্টেশন গুলিতে নজরদারি বৃদ্ধি করা হয়েছে। চিঠি দুটো ভুয়া হলেও হতে পারে কিন্তু বিষয়টিকে হালকাভাবে নেয়া হয়নি প্রশাসনের তরফে। জারি করা হয়েছে হাই এলার্ট।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.