রাহুল গান্ধীকে শিবের অবতার বলে প্রচার করছিল কংগ্রেসিরা! গুজরাটের হিন্দুরা দিল এমন শিক্ষা যে ভুয়ো প্রচারের আগে ১০০ বার ভাববে কংগ্রেস!

নির্বাচনের প্রচার জোর দিয়ে চলছে এবং প্রত্যেক পার্টির নেতারা লোকের বাড়ি, পাড়া, এবং আলাদা আলাদা এলাকায় ঘুরছে এবং পার্টির প্রচার করছে। তবে গুজরাটে কংগ্রেসের নেতা ও কর্মীরা একটু আলাদা ভাবে প্রচার করছেন, কংগ্রেসের লোকেরা ঘুরে ঘুরে মানুষকে এই কথা বলছে যে রাহুল গান্ধী ভগবান শিবের অবতার। গুজরাটের মন্ত্রী গণপত্থ ভাসওয়া এ প্রসঙ্গে বলেন, যদি রাহুল গান্ধী ভগবান শিবের অবতার হয় তাহলে 500 গ্রাম বিষ পান করে বেঁচে থেকে দেখাক। এই মন্তব্যের পর গুজরাটের সাধারণ হিন্দুরাও রাহুলকে বিষ পান করার চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়েছেন।

গণপত্থ ভাসওয়া সুরাটে এই কথা বলেছেন। তিনি বলেন, গত কয়েক দিন থেকে শুনছি রাহুল গান্ধীকে নিয়ে ভিত্তিহীন মূর্খের মতো প্রচার করা হচ্ছে। রাহুল গান্ধীকে ভগবান শিবের অবতার বলে প্রচার করা হচ্ছে।গুজরাটে হিন্দু জনসংখ্যার 90% এবং সেখানে গ্রামের এলাকাগুলিও অনেক বেশি, গ্রামের এলাকাগুলিতে মানুষ  খুব আস্থিক, এবং ভোলা ভালা। এখন কংগ্রেস এই সুযোগ উঠিয়ে মানুষকে বোকা বানাতে শুরু করেছে এবং সেখানেই রাহুল গান্ধীকে ভগবান শিবের অবতার বলে প্রচার করা হচ্ছে।

গণপত্থ ভাসওয়া বলেছিলেন যে ঐ রাহুল গান্ধীকে ভগবান শিবের অবতার অবশ্যই  মেনে নেব, যদি রাহুল গান্ধী 500 গ্রাম বিষ পান করে এবং জীবিত থেকে দেখাতো, তাহলে তাকে দেবতা শিবের অবতার মেনে নিতাম। গুজরাটের মন্ত্রীর সাথে সাথে সাধারণ হিন্দুরাও রাহুল গান্ধীকে বিষ পান করার চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়েছেন যা নিয়ে নতুন বিতর্ক তৈরি হয়েছে। আপনার স্মরণ করিয়ে দি, গুজরাটের বিধান নির্বাচনে রাহুল গান্ধী মন্দিরগুলোতে যাচ্ছিলেন এবং নিজেকে দেবতা শিবের ভক্ত, পৈতেধারী, ব্রাহ্মণ ইত্যাদি বলে প্রচার চলছিল। আর  এখন যখন লোকসভা নির্বাচনের কাছাকাছি, তখন কংগ্রেসের লোকেরা ধীরে ধীরে রাহুল গান্ধীকে ভগবান শিবের অবতার বলা শুরু করেছে। বিধানসভা নির্বাচনে যা প্রচার করা হয়েছে লোকসভাতে তার থেকে একটু এগিয়ে গিয়ে প্রচারের কাজ চলছে। তবে হিন্দুরা এখন রাহুল গান্ধীর দিকে যে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিয়েছে তা নিয়ে মুখ খুলতে পারেননি রাহুল গান্ধী।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.