অপেক্ষা করতে হবে অগস্ট মাস পর্যন্ত। মধ্যস্থতাকারীদের সময় দেওয়া হল ১৫ অগস্ট পর্যন্ত। এরপরই রাম জন্মভূমি ও বাবরি মসজিদ বিতর্ক নিয়ে সমাধান সূত্র বেরিয়ে আসতে পারে বলে খবর।

এর আগে শুনানিতে আযোধ্যা মামলার সমাধানে মধ্যস্থতাকারীদের হস্তক্ষেপের কথা জানিয়েছিল সুপ্রিম কোর্ট। সেইমত কাজ করছিল তিনজনের বিশেষ প্যানেল। কিন্তু সেই প্যানেলের কাজ সম্পূর্ণ না হওয়ায় সময় চেয়েছে তারা। শীর্ষ আদালত তাদের ১৫ অগস্ট পর্যন্ত সময় দিয়েছে।

ওই প্যানেলের তরফে জানানো হয়েছে যে তাদের ১৩,৫০০ পাতা অনুবাদ করতে হবে। ফলে সময় লাগবে অনেক। যদিও এই সিদ্ধান্তে খুশি নয় হিন্দু সংগঠনগুলি। মুসলিমরা এই সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়ছে।

সময় চেয়ে আবেদন জানিয়েছিলেন মধ্যস্থতাকারীদের প্যানেলের প্রধান এফএমআই কালিফুল্লা। এদিন বন্ধ খামে রিপোর্ট জমা দিয়েছে ওই প্যানেল।

বিচারপতিদের বেঞ্চ এদিন বলে যে, ১৫ অগস্ট পর্যন্ত সময় দিলে যদি সত্যিই সমাধান বেরোয়, তাহলে সময় দিতে ক্ষতি নেই। বহু বছর ধরে এই সমাধানের জন্য অপেক্ষা করা হয়েছে। তবে এখনও পর্যন্ত কতটা সমাধান হয়েছে, তা প্রকাশ্যে আনতে চাননি বিচারপতিরা। গোপনেই গ্রহন করেছেন সেই রিপোর্ট।

প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ, এস এ ববদে, ড. ডি ওয়াই চন্দ্রচূড়, অশোক ভূষণ ও আব্দুল নাজির ছিলেন বিচারপতিদের বেঞ্চে।

এর আগে গত ৮ মার্চ, অযোধ্যা মামলায় শুক্রবার সুপ্রিম কোর্ট মধ্যস্থতার নির্দেশ দেয়। মধ্যস্থতাকারী হিসেবে ছিলেন তিনজন। তিনজনকে নিয়েই তৈরি হয় এই বিশেষ প্যানেল। প্যানেলের মাথায় রয়েছেন প্রাক্তন সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি কালিফুল্লা। এছাড়া রয়েছেন শ্রী শ্রী রবিশঙ্কর ও শ্রীরাম পঞ্চু।

অযোধ্যার ২.৭৭ একর জমি জুড়েই এই বিতর্ক। যেখানে মুঘল সম্রাট বাবরের আমলে একটি মসজিদ তৈরি করা হয়েছিল। সেটাই বাবরি মসজিদ নামে পরিচিত হয়। হিন্দুত্ববাদীদের দাবি ছিল এই মন্দির আসলে রাম জন্মভূমির উপর তৈরি হওয়া প্রাচীন হিন্দু মন্দিরের ধ্বংসাবশেষের উপরেই তৈরি হয়েছিল।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.