চীন একটা নির্লজ্জ্ব ভন্ড দেশ যা মুসলিমদের অত্যাচার করে এবং অপরদিকে আতঙ্কবাদীদের রক্ষা করে: আমেরিকা।

আমেরিকার গৃহমন্ত্রী আনুষ্ঠানিকভাবে চীনকে নির্লজ্জ্ব দেশ বলে অপমান করেছেন। ভারত এর জন্য এটি  বড় কুটনৈতিক জয় । চীন একটি দোগলা এবং বেশরম দেশ বটে, এটা শুধু আমাদের কথা নয় বরং আমেরিকার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী  সামনে এসে চীনকে দ্বিচারিতা সম্পন্ন ও নির্লজ্জ্ব দেশ বলেছে, কারন চীন জঙ্গিদের রক্ষা করে এবং তাদের প্রতিপালনে সাহায্য করে।

আমেরিকার গৃহমন্ত্রী মাইক পম্পো বলেছেন – চীনকে খোলাখুলি কটাক্ষ করেছেন।

তিনি বলেন যে একদিকে চীন 2017 সাল থেকে এখন পর্যন্ত 10 লক্ষেরও বেশি মুসলমানকে বন্দী বানিয়ে রেখেছে, এবং অন্যদিকে চীন বিপজ্জনক আতঙ্কবাদীদেরও রক্ষা করছে। মাইক পম্পো বলেন – পৃথিবী এখন চীনের দ্বিচারিতা নীতির জন্য চুপ করে বসে থাকবে না। চীন একদিকে মুসলিম দিকে বন্দি করে রাখে, আর আরেকদিকে জাতিসংঘে ইসলামিক সন্ত্রাসবাদীদের রক্ষা করে।মাইক পম্পো এর বিবৃতি খুবই গুরুত্বপূর্ণ কারণ সম্প্রতি ভারত জাতিসংঘের সামনে মাসুদ আজাহারকে গ্লোবাল আতঙ্কবাদী ঘোষিত করার প্রস্তাব পেশ করেছিল, যার বিরুদ্ধে চীন ভোট করেছিল।

এখন আমেরিকা সবার সামনে চীনকে একটি দ্বিচারীতা সম্পন্ন দেশ ঘোষণা করছে, এটা ভারতের জন্য একটি বড় কুটিনৈতিক জয়, কারণ আমেরিকা একটি শক্তিশালী দেশ যার দিকে পুরো বিশ্বে চেয়ে থাকে।  ভারত আমেরিকার থেকে এ ধরনের কথাই খুশি হয়েছে, কারণ এর ফলে চীনের প্রতি যথেষ্ট চাপ সৃষ্টি হবে। একইসাথে আমেরিকা, ব্রিটেন ও ফ্রান্স মিলে মাসুদ আজহারের বিরুদ্ধে একটা প্রস্তাব আনবে বলেও খবর সামনে এসেছে। জানিয়ে দি, চীন তাদের দেশের মুসলিমদের উপর অত্যাচার করে এবং আরবি ইসলাম ছেড়ে চিনী সংস্কার গ্রহণের জন্য চাপ দেয়। কারন চীন মনে করে, যে আরবি ইসলাম নিয়ে মুসলিমরা থাকলে তারা আরবের প্রতি নিষ্ঠাবান হবে এবং চীনের প্রতি বিশ্বাসঘাতক তৈরি হবে। অন্যদিকে চীন মাসুদ আজহারের মতো আতঙ্কবাদীদের রক্ষা করে, শুধুমাত্র ভারতের বিকাশে বাধা প্রদানের জন্য।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.