মার্কিন নির্দেশিকায় মে মাসের প্রথম সপ্তাহের পর ইরান থেকে আর তেল আমদানি করা যাবে না। এমন নির্দেশিকার জেরে ইতিমধ্যেই জ্বালানির দামে-অস্থিরতা দেখা দিয়েছে। হু হু করে অপরিশোধিত তেলের দাম বাড়তে শুরু হয়েছে আন্তর্জাতিক বাজারে ৷ যার জেরে বৃহস্পতিবারই ব্রেন্ট তেলের দর ব্যারেল পিছু বেড়েছে পৌঁছে গিয়েছে ৭৫ মার্কিন ডলার। যা ভারতীয় মুদ্রায় প্রায় সাড়ে পাঁচ হাজার টাকা।

বিশেষজ্ঞদের মত, জ্বালানির এই দর আরও বাড়তে পারে এবং ইতিমধ্যেই টাকার দরও কমতে শুরু করেছে। বৃহস্পতিবার মার্কিন ডলারের তুলনায় টাকার দর কমেছে ৩৯ পয়সা।আর তেমন কিছু সত্যিই ঘটলে,কেন্দ্রের নতুন সরকারকে। রীতিমতো চ্যালেঞ্জের মুখে পড়তে হবে তা বলাই বাহুল্য৷

পরমাণু গবেষণার ক্ষেত্রে ইরান মার্কিন শর্ত মানেনি। তাই নিষেধাজ্ঞার কবলে পড়েছে তেল উৎপাদনকারী প্রথম সারির এই দেশ। তবে গত বছর নভেম্বর এই নিষেধাজ্ঞায় কিছুটা শিথিল করায় ইরান থেকে তেল আমদানির ক্ষেত্রে ভারত সহ আটটি দেশকে ছ’মাসের জন্য ছাড়পত্র দিয়েছিল ট্রাম্প প্রশাসন। কিছু এবার সেই মেয়াদ ফুরিয়ে যাবে আগামী মে মাসের প্রথম সপ্তাহে। তখন থেকেই ইরান থেকে তেল আমদানি করতে পারবে না ভারত।

এদিকে আমেরিকার এমন সিদ্ধান্তে ক্ষোভ প্রকাশ করেছে রাশিয়া। কারণ, আন্তর্জাতিক বাজারে তেল-বাণিজ্যে ওপেক (অর্গানাইজেশন অব পেট্রলিয়াম এক্সপোর্টিং কান্ট্রিজ) গোষ্ঠীভুক্ত দেশগুলিকে অনেকটাই নিয়ন্ত্রণ করে মস্কো।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.