শ্রীলঙ্কায় রবিবার ইস্টারের দিন হওয়া হামলায় মূল অভিযুক্ত দুই মুসলিম ভাই। শ্রীলঙ্কায় ধারাবাহিক বোম ব্লাস্টে প্রায় ৩২০ জনের মৃত্যু হয়েছে। আহত ৫০০ এর উপরে।

এএফপি সংবাদ মাধ্যমের সূত্র অনুযায়ী, দুই ভাই কলম্বোর সমৃদ্ধ মসলা ব্যবসায়ীর ছেলে। সংগরিলা আর গ্র্যান্ড হোটেলে ব্রেকফাস্ট এর লাইনে দাঁড়িয়ে দুজন নিজেদের বোমা দিয়ে উড়িয়ে নেয়!

সূত্র থেকে জানা যায় যে, ওই বোম হামলায় আরেকটি হোটেলকেও নিশানা বানানো হয়েছিল। কিন্তু জঙ্গিরা সেখানে সফল হয়নি।

যদিও এখনো এটা স্পষ্ট হয়নি যে, তিনটি হোটেল আর তিনটি চার্চে হামলা করা জঙ্গিদের সাথে এই দুই ভাইয়ের কি সম্পর্ক ছিল।

আধিকারিক জানায়, দুই ভাই ইসলামিস্ট ন্যাশনাল তৌহিদ (NTJ) এর প্রধান সদস্যদের মধ্যে একজন ছিল। শ্রীলঙ্কা সরকার হামলার জন্য এই সংগঠনকেই দায়ী করেছে।দুই ভাইয়ের নাম এখনো প্রকাশ করা হয়নি। তদন্তকারী সংস্থার মতে, তাঁদের বয়স ২০ এর আশেপাশে।

হামলার একদিন আগে হামলাকারীরা হোটেলে চেকইন করে। তাঁরা রবিবার সাইটে থাকলেও হামলা চালায়নি। তবে এটা স্পষ্ট হয়নি যে, তাঁরা বিস্ফোরণ ঘটাতে অসফল ছিল? না অন্য কারণে বিস্ফোরণ করাতে পারেনি।

সংগরিলা ব্লাস্টের পর হোটেলের স্টাফের সন্দেহ হয়েছিল। হোটেল থেকে পুলিশকে ঘটনা জানানোর পর, পুলিশ সন্দেহজনক ব্যক্তিকে রাজধানীর আশেপাশে ট্র্যাক করেছিল। পুলিশ ওই ব্যক্তিকে আটকানোর চেষ্টা করলে, সে বোমা বিস্ফোরণ করে নিজেকে উড়িয়ে নেয়। আর ওই বিস্ফোরণে দুই পথচারীর মৃত্যু হয়।

শ্রীলঙ্কায় এর আগেও মুসলিম আর বৌদ্ধদের মধ্যে সংঘর্ষ দেখা গেছে। গত বছরের সাম্প্রদায়িক হিংসার পর গোটা দেশেই ইমারজেন্সি ঘোষণা করা হয়েছিল।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.