দর্শকের আসনে বসে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি (PM Narendra Modi)। পাশে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (CM Mamata Banerjee)। তখনও বিতর্কের সূত্রপাত হয়নি। শনিবার বিকেলে ভিক্টোরিয়ার মঞ্চে সুরেলা আবহ তৈরি করলেন ঊষা উত্থুপ, পাপন, সৌম্যজিৎ এবং সৌরেন্দ্রর মতো শিল্পীরা।

ভিক্টোরিয়ায় ১২৫তম নেতাজি জন্মজয়ন্তী (125th Birth Anniversary of Netaji Subhas Chandra Bose) পালনের প্রস্তুতি বেশ কিছুদিন আগে থেকেই শুরু হয়ে গিয়েছিল। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের সূচনা করে শিশু শিল্পীরা। বাদ্যের সঙ্গতে গেয়ে ওঠে ‘কদম কদম বাড়ায়ে যা’। প্রত্যেকেই পরেছিল আজাদ হিন্দ ফৌজের ইউনিফর্ম।

শিশুশিল্পীদের পরই ‘সুভাষজি’ গানের সুর ধরেন পাপন (Papon)। তারপর কবিগুরুর “যদি তোর ডাক শুনে কেউ না আসে” সংগীত পরিবেশন করেন ঊষা উত্থুপ (Usha Uthup)। বাংলার পাশাপাশি ইংরাজিতেও গানটি গান।

পাপন ও ঊষা উত্থুপের পর “ধন ধান্য পুষ্প ভরা” গানে মঞ্চ মাতান সৌম্যজিৎ এবং সৌরেন্দ্র (Sourendro-Soumyojit)। গানের নেপথ্যে দেশের বিভিন্ন প্রান্তের লোকনৃত্যও পরিবেশন করা হয়।

সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান শেষে প্রদীপ প্রজ্জ্বলন হয়। তারপরই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বক্তব্য রাখবেন না বলে জানিয়ে দেন। নেতাজির স্মরণে পোস্টাল স্ট্যাম্প উদ্বোধন করার পর বক্তব্য রাখেন প্রধানমন্ত্রী মোদি। সন্ধেয় একাধিক শিল্পীর জাতীয় সংগীতের মধ্যে দিয়ে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘটে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.