ট্রেনে চেঁচিয়ে কথা বললে বা গান বাজালেই শাস্তি: রেলের নয়া নীতি

দূরপাল্লার ট্রেন। দুলুনিতে রাতে তন্দ্রা মতো এসে গিয়েছে। কিন্তু হঠাত্ই ফোন বেজে উঠল। নিচের বেডের যাত্রীর। শুরু হল ফোনে গল্প। ব্যাস, ঘুমের দফারফা। তার উপর ওপাশের বাঙ্কে ফোনে সিনেমা দেখছেন আরেকজন। হেডফোনের বালাই নেই।

ট্রেনে যাঁরা দূরপাল্লার যাত্রা করেছেন, তাঁদের একবার না একবার এই পরিস্থিতিতে পড়তেই হয়েছে। সেই দিকেই এবার নজর দিল ভারতীয় রেল। এবার থেকে এসব বিষয়ে কড়া নজর রাখবেন রেলকর্মীরা। কোনও যাত্রী নিয়মের অমান্য করলেই আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।ট্রেন্ডিং স্টোরিজ

এ বিষয়ে ইতিমধ্যেই টিকিট পরীক্ষক, আরপিএফ, কেটারিং, কোচ অ্যাটেন্ডেন্টদের নির্দেশিকা দিয়েছে রেল। যাত্রীদের শিষ্টাচার মেনে চলার কথা মনে করিয়ে দিতে বলা হয়েছে তাঁদের।

রেলের এক আধিকারিক জানান, ‘সহযাত্রী জোরে জোরে ফোনে কথা বলছেন অথবা, একদল যাত্রী রাতেও ট্রেনে হইহই করে আড্ডা দিচ্ছেন। এই ধরণের ভুরি ভুরি অভিযোগ আসে। তাছাড়া কেউ কেউ তো অন্যের অসুবিধার তোয়াক্কা না করেই গান চালিয়ে দেন।’

পশ্চিম রেলের এক আধিকারিক জানালেন, আগামী ২ সপ্তাহের জন্য এ বিষয়ে সচেতনতার প্রচার হবে।

রাত দশটার পর যে নিয়ম মানতে হবে:

১. ট্রেনের যাত্রীরা ফোনে উচ্চ স্বরে কথা বলতে পারবেন না।হেডফোন ছাড়া গান শুনতে পারবেন না।

২. রাতের নাইটলাইট ছাড়া ট্রেনের সব আলো রাত ১০টার পর নিভিয়ে দিতে হবে।

৩. দলে ভ্রমণকারী যাত্রীরা গভীর রাত পর্যন্ত আড্ডা দিতে পারবেন না।

৪. সহযাত্রীর অভিযোগের ভিত্তিতে রেল এই ধরনের যাত্রীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.