গর্জনের সঙ্গে বর্ষণ, প্রতীক্ষিত বৃষ্টিতে স্বস্তিতে বঙ্গবাসী

প্রতীক্ষিত বৃষ্টিতে স্বস্তি পেল বঙ্গবাসী। মঙ্গলবার ভোর থেকেই কলকাতা ও সংলগ্ন জেলাগুলির আকাশ ছিল মেঘে ঢাকা। ভোর থেকেই কলকাতায় হালকা বৃষ্টিপাত হয়েছে, বৃষ্টি হয়েছে ক্যানিং থেকে সোনারপুর, বারাসত থেকে বনগাঁ প্রভৃতি জায়গায়। বৃষ্টির সঙ্গেই ছিল মেঘের গর্জন ও ঝোড়ো হাওয়া। সোমবার রাত থেকে বিদ্যুৎ চমকানোর পাশাপাশি ঝোড়ো হাওয়া বইতে শুরু করে কলকাতা এবং গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গের জেলাগুলিতে। রাতে সামান্য বৃষ্টি হলেও, মঙ্গলবার ভোর থেকেই কলকাতা ও সংলগ্ন জেলাগুলির আকাশ ছিল মেঘে ঢাকা। মঙ্গলবার কলকাতার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ২২.৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের থেকে ৩ ডিগ্রি কম। এদিনের হালকা বৃষ্টিতেই শহরের বেশ কিছু জায়গায় জল জমেছে। এজেসি বোস রোড উড়ালপুলে জল জমে যায়। ক্যামাক স্ট্রিটও জল থইথই।
আলিপুর আবহাওয়া দফতর সূত্রের খবর, উত্তরপ্রদেশ থেকে অসম পর্যন্ত একটি ঘূর্ণাবর্ত তৈরি হয়েছে। সঙ্গে বঙ্গোপসাগর থেকে ঢুকছে জলীয় বাষ্প। তার জেরেই গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গের জেলাগুলিতে এই বৃষ্টিপাত। কোথাও কম, কোথাও আবার বেশি বৃষ্টি হবে। এই ঘূর্ণাবর্তের জেরে আগামী দু’দিনও বৃষ্টিপাত হতে পারে এ রাজ্যে। মালদহ, উত্তর এবং দক্ষিণ দিনাজপুর, মুর্শিদাবাদ, নদিয়া এবং উত্তর ২৪ পরগনাতেও ভারি বৃষ্টির পূর্বাভাস দিয়েছে আবহাওয়া দফতর। এ ছাড়াও বাকি জেলাগুলিতেও বজ্রবিদ্যুৎ-সহ ঝোড়ো হাওয়ার পূর্বাভাস রয়েছে। সিকিম এবং দার্জিলিংয়ের আশপাশের একালাও মেঘাচ্ছন্ন থাকবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.