দিদির নৌকা এবার ডুবতে চলেছে: মমতাকে নজিরবিহীন আক্রমণ মোদীর

 নির্বাচনের আগে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর প্রথম সভা শিলিগুড়িতে। ফলে সেই সভা সফল করতে রীতিমত চ্যালেঞ্জের ছিল বিজেপি নেতৃত্বের কাছে। কারণ একদিকে উত্তরবঙ্গকে পাখির চোখ করেই আজ বুধবার থেকে প্রচার শুরু করছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু শিলিগুড়ির মানুষ নিরাশ করেনি বিজেপিকে। সভা শুরুর কয়েক ঘন্টা আগে থেকে ভিড় বাড়তে থাকে শিলিগুড়িতে মোদীর সভাস্থলে। যখন সভাস্থলে মোদী বক্তব্য রাখতে শুরু করেন তখন মাঠ পুরো ভর্তি। আর তা দেখে আপ্লুত খোদ প্রধানমন্ত্রী। তা প্রধানমন্ত্রী মোদীর চোখে-মুখেও প্রকাশ পেল।

কিছুক্ষণের মধ্যেই বক্তব্য শুরু করলেন প্রধানমন্ত্রী। আর শুরুতেই বক্তব্য রাখলেন বাংলাতে। উত্তরবঙ্গের মানুষকে সভায় আসার জন্যে ধন্যবাদ জানালেন। এরপর নিজের স্বভাব ঢঙে বক্তব্য রাখতে শুরু করলেন প্রধানমন্ত্রী। বক্তব্য শুরু করলেও এই ভিড় যে তাঁকে সন্তুষ্ট করতে পেরেছে তা বোঝালেন। সভা থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উদ্দেশ্যে মোদীর বক্তব্য, আজ দিল্লি থেকে অনেক ক্যামেরা কলকাতায় গিয়েছে। যদি এদিকে নজর দিত তাহলে তাঁরা ঢেউ দেখতে পেত। আমি শুনেছি বাংলা যা করে দেশ পরবর্তী কালে অনুসরন করে। অনেক রাজনৈতিক পন্ডিতরাও একথা বলেছে। আমিও তাই বলছি। না দেখলে তা কেউ বিশ্বাস করবে না বলে দাবি করেন মোদী।

এই প্রসঙ্গে মমতাকে নজিরবিহীনভাবে আক্রমণ শানাতে ছাড়লেন না প্রধানমন্ত্রী মোদী। প্রধানমন্ত্রীর তোপ, এই ভিড় বলে দিচ্ছে দিদির নৌকা এবার ডুবতে চলেছে। সভায় আসা জনতার উদ্দেশ্যে প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, আপনাদের ভালোবাসা আমার মাথার উপর। এমন ভালোবাসা বাংলা থেকে পাব আশা করিনি। আপনাদের প্রণাম জানাছি। আমার প্রতি আপনাদের ভালোবাসা দেখে দিদির ঘুম উড়িয়ে গিয়েছে।

উল্লেখ্য, লোকসভা নির্বাচন ঘোষণা হওয়ার পর রাজ্য প্রথম সভা করতে এলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। গতবারের তুলনায় এবার লোকসভা নির্বাচন এরাজ্যে বিজেপির জন্য অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ। তাই উত্তরবঙ্গে প্রথম সভায় মোদীর গলায় ঝাঁঝ ছিল জোরালো। আর সেখানে লক্ষাধিক মানুষের ভিড় মোদীর বক্তব্যকে আরও তেজ বাড়িয়ে তুলেছিল। আর তাই শুরু থেকে বালাকোট, উন্নয়ন সহ একাধিক ইস্যুতে তৃণমূল নেত্রী মমতাকে আক্রমণ শানালেন প্রধানমন্ত্রী।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.