বিজেপির সংকল্প যাত্রার মিছিলে নির্বিচারে লাঠিচার্জ করবার অভিযোগ পুলিশের বিরুদ্ধে। বালুরঘাটের মঙ্গলপুরে পুলিশের সঙ্গে খণ্ডযুদ্ধ বাধে আন্দোলনকারীদের। প্রতিবাদে জাতীয় সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ উত্তেজিতদের। ঘটনায় জেলা বিজেপির সভাপতি সহ চারজনকে আটক পুলিশের।

বিজেপির বাইক মিছিল আটকে দিতে রবিবার সকাল থেকেই মঙ্গলপুর এলাকায় দলীয় কার্যালয়ের সামনে ব্যারিকেড দিয়ে ঘিরে রাখে বালুরঘাট থানার পুলিশ।বেলা বাড়তেই কর্মী-সমর্থকদের একত্রিত হতে দেখে সক্রিয় হয়ে ওঠে পুলিশকর্মীরা। বাইক মিছিল হিলির দিক থেকে ছুটে আসতে ব্যারিকেড দিয়ে তাদের বাধা দেয় পুলিশ। ঘটনার প্রতিবাদ করতেই বিজেপি কর্মীর মাথায় আঘাত করে এক পুলিশ কর্মী বলে অভিযোগ। যার পরেই উত্তেজিত হয়ে ওঠে বিজেপি কর্মীরা। উত্তেজিতদের ছত্রভঙ্গ করতে বেপরোয়া লাঠিচার্জ করে ডিএসপির নেতৃত্বে বালুরঘাট থানার পুলিশ। ঘটনায় আহত হয়েছেন এক মহিলা সহ বেশ কয়েকজন কর্মী সমর্থক। যদিও সেই সময় পাল্টা পুলিশকে লক্ষ্য করে পাথরও ছোড়া হয় আন্দোলনকারীদের তরফে বলে অভিযোগ। ঘটনার পরে পুলিশকে ঘিরে তুমুল বিক্ষোভে উত্তেজিত হয়ে ওঠে এলাকা। প্রতিবাদে বালুরঘাট গাজোল ৫১২ নম্বর জাতীয় সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন উত্তেজিতরা। দীর্ঘক্ষণ জাতীয় সড়ক অবরুদ্ধ থাকার পর পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে জেলা বিজেপির সভাপতি সহ মোট চারজনকে আটক করে বালুরঘাট থানার পুলিশ।

বিজেপির জেলা সভাপতি শুভেন্দু সরকার জানিয়েছেন, শান্তিপূর্ণ বাইক মিছিল আটকে দিতে পূর্বপরিকল্পনা অনুযায়ী রাস্তায় নামে পুলিশ। ব্যারিকেড দিয়ে আটকে দেওয়া হয় কর্মী-সমর্থকদের। যার প্রতিবাদে উত্তেজিত হতেই বেপরোয়া লাঠিচার্জ করা হয়েছে তাদের ওপর। যার প্রতিবাদে তারা জাতীয় সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখিয়েছেন।

যদিও লাঠিচার্জের ঘটনা অস্বীকার করা হয়েছে পুলিশের তরফে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.