গভীর রাতে বীরভূমের গ্রামে বোমাবাজি, সকালে বাসিন্দাদের আশ্বস্ত করল কেন্দ্রীয় বাহিনী

পতাকা লাগানো নিয়ে গতকাল সন্ধে থেকেই তেতে ছিল এলাকা। মাঝরাতে শুরু হয় বোমাবাজি। আজ সকালে কেন্দ্রীয় বাহিনী এলাকায় রুটমার্চ শুরু করতেই ঘিরে ধরলেন আতঙ্কিত গ্রামবাসীরা। নিরাপত্তার দাবিতে।

সিউড়ি ২ নম্বর ব্লকের চাদরা গ্রাম। বিজেপির কর্মী সমর্থকদের অভিযোগ, গতকাল বিকেলে তাঁরা গ্রামে পতাকা ও ফেস্টুন লাগাতে শুরু করলে বাধা দেয় শাসকদলের কর্মীরা। তাঁদের বেশ কিছু পতাকা টেনে খুলে দেয় তারা। ছিড়ে দেয় ফেস্টুন। এই নিয়ে গণ্ডগোল চলে রাত পর্যন্ত। পুলিশ এসে পরিস্থিতি সামাল দেয়। এরপর যে যার বাড়ি ফিরে যান।

কিন্তু রাত বারোটা থেকে গোটা গ্রাম জুড়ে শুরু হয় বোমাবাজি। বিজেপি সমর্থকদের অভিযোগ, গ্রামে সন্ত্রাস তৈরি করতেই বোমাবাজি করে তৃণমূল।  আজ সকালে ওই গ্রামে কেন্দ্রীয় বাহিনী রুটমার্চ শুরু করতেই তাদের কাছে নিরাপত্তার দাবি জানান তাঁরা। ঘটনাস্থল থেকে বেশকিছু বোমার সপ্লিন্টার উদ্ধার করে নিয়ে যান কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানরা। পাশে থাকবেন বলে গ্রামের মানুষকে আশ্বস্তও করেন তাঁরা।

সিউড়ি ২ নম্বর ব্লকের তৃণমূল ব্লক সভাপতি নুরুল ইসলাম বলেন, “তৃণমূলের বিরুদ্ধে গ্রামের লোকজন কখনই মিথ্যে অভিযোগ করবেন না। কেন্দ্রীয় বাহিনীকে দেখে বিজেপির কর্মীরাই মিথ্যে কথা বলেছে। পটকা ফাটানোকে বোমাবাজি বলছে। পায়ের তলায় মাটি নেই। তাই যখন যেমন ইচ্ছে বলছে। আমরা চাই পুলিশ সঠিক তদন্ত করুক।”

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.