শুক্রবার সকাল থেকেই কেন্দ্রীয় বাহিনীর ভারি বুটের টহলদারি শুরু হল বীরভূমের সীমান্তবর্তী গ্রামগুলিতে। এদিন মহম্মদ বাজার ব্লকের রামপুর গ্রামপঞ্চায়েত এলাকায় রামপুরহাট মহকুমা পুলিশ আধিকারিকের নেতৃত্বে বিএসএফের ১৮০ ডি কোম্পানির জওয়ানরা ‍টহলদারী চালায়। মোট ১৮০ জন বিএসএফের এই কোম্পানি বৃহস্পতিবার রাতে মহম্মদ বাজারের প্যাটেলনগর কৃষকবাজারে এসে পৌঁছায়। সকাল থেকে রামপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের মোট ১১ টি গ্রামে টহলদারি চালাতে দেখা যায় তাদের। সঙ্গে রাজ্য পুলিশের কর্তাব্যক্তিরা ছিলেন।

প্রসঙ্গত, বীরভূমের ১৬৭ টি গ্রাম পঞ্চায়েতের মধ্যে মাত্র একটি পঞ্চায়েতে এখন বোর্ড গঠন করতে পারেনি প্রশাসন। সেই পঞ্চায়েতটি হল মহম্মদ বাজার ব্লকের রামপুর গ্রামপঞ্চায়েতে। ওই গ্রামপঞ্চায়েতের মোট ছয়টি আসনের মধ্যে তৃণমূল ও বিজেপি তিনটি করে দখল করে। প্রশাসনের পক্ষ থেকে চারবার বোর্ডগঠনের নিদের্শিকা জারি করলেও আজও বোর্ডগঠন করা সম্ভব হয়নি। বার বার বিভিন্ন কারণ দেখিয়ে স্থগিতাদেশের নির্দেশ দিয়েছিল প্রশাসন। ঝাড়খণ্ড লাগোয়া এলাকা হওয়ায় অতি স্পর্শকাতর গ্রামপঞ্চায়েত রামপুর। প্রায় সময়ই বেশ কিছু জায়গায় অশান্তির পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে। সীমান্তবর্তী এলাকা হওয়ায় কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানদের ৫১ টি মোটর বাইক, লাইট ম্যাসিনগান, ব্যারোটা (এস.এম.জি), ইনসাসের মতো আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে টহলদারী করতে দেখা যায়। গ্রামবাসীদের সঙ্গে কথা বলতে দেখা যায় পুলিশ আধিকারিক ও সেনা আধিকারিকদের।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.