প্রয়াত লোকসঙ্গীত শিল্পী অমর পাল। ৯৭ বছর বয়স হয়েছিল তাঁর। শনিবার সন্ধ্যায় তাঁর মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়ে। লোকসঙ্গীতে দুই বাংলায় বিশেষ জনপ্রিয় ছিলেন শিল্পী। চলচ্চিত্র পরিচালক সত্যজিৎ রায় তাঁকে ‘হীরক রাজার দেশে’ ছবিতে গান গাইয়েছিলেন। তাঁর প্রভাতী সঙ্গীতগুলি বিশেষ বিখ্যাত। এ দিন বিকেল সাড়ে পাঁচটা নাগাদ এসএসকেএম হাসপাতালে মৃত্যু হয় অমর পালের।

শনিবার দুপুরে বাড়িতেই সেরিব্রাল অ্যাটাক হয় বর্ষীয়ান এই সঙ্গীত শিল্পীর। নিয়ে আসা হয় এসএসকেএম হাসপাতালে। অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাঁকে ভর্তি করা হয় আইটিইউ-তে। বিকেল পাঁচটা ৫০ মিনিট নাগাদ শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি।

অবিভক্ত বাংলার ব্রাহ্মণবেড়িয়ায় লোকশিল্পী অমর পালের জন্ম হয়। ওই অঞ্চলটি লোকসঙ্গীত চর্চার জন্য প্রসিদ্ধ। মাত্র ১০ বছর বয়সে তাঁর বাবা মারা যান। মা দুর্গাসুন্দরীর কাছে বাল্যকালে তাঁর সঙ্গীতে হাতেখড়ি হয়। পরে তিনি সঙ্গীতগুরু আয়াত আলি খানের কাছে আট বছর উচ্চাঙ্গ সঙ্গীত শিক্ষা করেন। আয়াত আলি খান ছিলেন বিখ্যাত সঙ্গীতশিল্পী বাবা আলাউদ্দিন খানের ভাই।

দেশভাগের পরে ১৯৪৮ সালে অমর পালকে কলকাতায় চলে আসতে হয়। এখানে তিনি সুরেন চক্রবর্তী, মণি চক্রবর্তী ও ননীগোপাল বন্দ্যোপাধ্যায়ের মতো বিখ্যাত লোকসঙ্গীত শিল্পীর কাছে শিক্ষালাভ করেন। তিনি নিজে বহু লোকসঙ্গীত রচনা করেছেন। বিভিন্ন ছবিতে সেই সঙ্গীত ব্যবহৃত হয়েছে। সত্যজিৎ রায় বাদে তিনি পরিচালক দেবকীকুমার বসু ও পরবর্তীকালে ঋতুপর্ণ ঘোষের সঙ্গে কাজ করেছেন। তাঁর মৃত্যুতে শোকের ছায়া বাংলার সঙ্গীত মহলে।

বিশিষ্ট লোকসঙ্গীত শিল্পীর প্রয়াণে শোক জ্ঞাপন করে টুইট করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.