বাংলার আটটি আসন-সহ দেশের ছ’টি রাজ্যের ৫৯টি আসনে ভোটগ্রহণ শুরু। রবিবার, ষষ্ঠ দফার ভোটে সকাল থেকেই বুথে বুথে মানুষের লাইন। কড়া নিরাপত্তায় শুরু হয়েছে ভোটগ্রহণ।

চোদ্দর ভোটের নিরিখে এই ৫৯ আসনের ৪৫টি ছিল বিজেপি-র জেতা। একাধিক হেভিওয়েট প্রার্থীর ভাগ্য নির্ধরিত হবে এ দিন। কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হর্ষ বর্ধন, কংগ্রেসের জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া, সমাজবাদী পার্টি প্রধান অখিলেশ যাদবের মতো নেতারা রয়েছেন এই তালিকায়।

বাংলাতেও তালিকাটা কম বড় নয়। তৃণমূলের দেব, সুব্রত মুখোপাধ্যায়, মৃগাঙ্ক মাহাত, মানস ভুঁইয়া, শিশির অধিকারীর মতো প্রার্থীদের পাশাপাশি রয়েছেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ, ভারতী ঘোষরা। বাংলার যে আটটি কেন্দ্রে এ দিন ভোট হচ্ছে সেগুলি হল- তমলুক, কাঁথি, মেদিনীপুর, ঘাটাল, ঝাড়গ্রাম, পুরুলিয়া, বাঁকুড়া ও বিষ্ণুপুর আসনে।

ভোটের আগের রাতেই হিংসার ঘটনা ঘটেছে ঝাড়গ্রামে। বিজেপি বুথ সহ সভাপতিকে পিটিয়ে খুন করার অভিযোগ উঠেছে শাসক দলের বিরুদ্ধে। গত লোকসভায় এই আট আসনই জিতেছিল তৃণমূল। কিন্তু এ বার পরিস্থিতি আলাদা। জঙ্গলমহলের একাধিক জয়গায় গত পঞ্চায়েত ভোটে তৃণমূলের পায়ের তলার মাটি সরিয়ে দিয়েছে গেরুয়া শিবির। চারটি কেন্দ্রে প্রার্থী বদল করেছেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পঞ্চম দফায় ১০০ শতাংশ বুথে কেন্দ্রীয় বাহিনী থাকা সত্ত্বেও হিংসা আটকানো যায়নি। হাওড়া, হুগলি এবং উত্তর চব্বিশ পরগনার একাধিক জায়গায় অশান্তির ঘটনা ঘটেছিল। এখন দেখার কী ভাবে কাটে ষষ্ঠ দফা। ভোটের সমস্ত টাটকা খবরের জন্য নজর রাখুন দ্য ওয়াল.ইন-এ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.