প্রতি গরিবকে বছরে ৭২,০০০ টাকা নয়, বছরে ৭২,০০০ কোটি টাকা দেওয়ার ঘোষণা রাহুল গান্ধীর!

রাহুল গান্ধী রাফেল নিয়ে মোদী সরকারকে আক্রমন করতে গিয়ে নানা দামের কথা উল্লেখ করেছিলেন। যা নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় বহু ট্রল হতে হয়েছিল কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধীকে। তবে এখন আরো একবার ট্রল হতে শুরু করে দিয়েছেন রাহুল গান্ধী। আসলে বিগত দিনে রাহুল গান্ধী নির্বাচন জেতার জন্য দেশবাসীকে অনেক বড় পতিশ্রুতি দিয়েছেন। পতিশ্রুতি দিয়েছিলেন যে যদি কংগ্রেস ক্ষমতায় আসে তাহলে গরিবদের বছরে ৭২০০০ টাকা দেওয়া হবে অর্থাৎ প্রতি মাসে ৬০০০ টাকা দেওয়া হবে। উদ্যেশে একটাই ফ্রীতে টাকার লোভ দেখিয়ে ভোটব্যাঙ্ক গড়ে তোলা। কংগ্রেস জানে যে ভারতে এখনো অনেক মানুষ ফ্রীতে কিছু পেলেই ভোট দিতে রাজি হয় সেই নীতিকে কাজে লাগিয়ে রাহুল গান্ধী ঘোষণা করেছিল। পতিশ্রুতি শুধুমাত্র গরিব মানুষদের জন্য করা হয়েছিল কারণ দেশের গরিব বর্গের মানুষ সবথেকে বেশি ভোট প্রদান করে। অন্যদিকে মধ্যবিত্ত, উচ্চমধ্যবিত্ত অনেক মানুষ নিজেকে অতি বুদ্ধিমান মনে করে ভোট প্রদান করে না তথা নিজের অধিকার কাজে লাগায় না।

যাইহোক এখন রাহুল গান্ধী এক রালিতে ৭২,০০০ প্রতি বছরের পরিবর্তে ৭২,০০০ টাকা প্রতি মাসে ঘোষণা করে দিয়েছেন। শুধু এই নয় আরো এক সভাতে উনি ৭২,০০০ কোটি প্রতি বছর দেওয়ার ঘোষণা করেছেন। প্রতি বছর ৭২০০০ টাকা প্রতি বছর, তারপর ৭২০০০ টাকা প্রতি মাস, আর এখন ৭২০০০ কোটি প্রতি বছর দেওয়ার ঘোষণা করে দিয়েছেন রাহুল গান্ধী। পাঠকদের জন্য রাহুল গান্ধীর সেই ভিডিও দেওয়া হলো।

রাহুল গান্ধীর এমন ভুল ভ্রান্তি ভাষণ নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়া জুড়ে ব্যাপক ট্রল শুরু হয়েছে। উইকিলিস রাহুল গান্ধীকে মানসিক রোগী বলে যে রিপোর্ট জারি করে ছিলো সেই নিয়েও চর্চা শুরু হয়েছে। দেশের সবথেকে পুরানো পার্টির নেতা কিভাবে এমন ভুলভাল ভাষণ দিতে পারে তা নিয়ে রাজনৈতিক মহলেও আলোচনা শুরু হয়েছে। যদিও টাকা খেয়ে খবর পরিবেশন করা সংবাদ মাধ্যম রাহুল গান্ধীর এই ভাষন নিয়ে খবর প্রকাশিত করতে রাজি নয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.