দুর্গা পুজোকে টার্গেট করে বাংলাদেশের জায়গায় জায়গায় চলছে মূর্তি ভাঙার খেলা, বাঙালিদের জন্য তৈরী রাষ্ট্রে এখন জাতির শ্রেষ্ঠ উৎসবের স্থান নেই, সব মিলিয়ে গত ৬ মাসে ৪৬ টি মূর্তি ভাঙা হয়েছে

বাঙালির শ্রেষ্ঠ উৎসব দুর্গা পুজো , অথচ এক সময় বাঙালিদের জন্য তৈরী রাষ্ট্র বাংলাদেশ (Bangladesh) এখন বাঙালিদের পুজো আয়োজনের সময় ভয়ে ভয়ে থাকতে হয় পাছে পুজো না আক্রান্ত হয়।
ওই ধর্মভিত্তিক ইসলামীয় সমাজ ব্যবস্থাতে কোনো স্থান নেই বাঙালিদের দূর্গা পুজোর। নিজেদের দেশেই দূর্গা পুজো করতে সরকারের কাছে নিরাপত্তা দাবি করছে বাংলাদেশের বাঙালি (হিন্দু) সমাজ।

পুজোর ঠিক আগেই সুন্দরগঞ্জ, মীরগঞ্জের সাচিয়া সাহাপাড়ায় দূর্গা প্রতিমা ভাংচুর করা হয় আনুমানিক রাত ৩ টার সময়। হিন্দু মানবাধিকার কর্মী অরবিন্দু রায় এই ঘটনার তীব্র নিন্দা করেছেন। মাত্র কদিন আগে, কুষ্টিয়াতে মুসলিমরা বড়োসড়ো আক্রমণ চালায় আড়ুয়াপাড়ার ঐক্য যুবসংঘের পুজো প্যান্ডেলে।
মা দুর্গার প্রতিমা সম্পূর্ণ গুঁড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। এছাড়া ভেঙে দেওয়া হয়েছে গণেশ , কার্তিক , লক্ষী ও সরস্বতী ঠাকুর এর মূর্তিও। মূলত মুন্ডুচ্ছেদ করা হয় মূর্তি গুলির।

বাংলাদেশের ডিস্ট্রিক্ট পুজো সেলেব্রেশন কমিটি র সভাপতি অনুপ নন্দীর (Anup Nandi, President, District Pujo Celebration Committee) বলেন , ” শুধু কুষ্টিয়া নয় , বিভিন্ন জায়গা থেকেই বাঙালিদের (হিন্দু) উপর আক্রমণের খবর আসছে , আসছে মা দূর্গার মূর্তি ভেঙে দেওয়ার অনেক ঘটনাই , এবং তা গোটা বাঙালি (হিন্দু) সমাজের পক্ষে অত্যন্ত খারাপ।”

প্রসঙ্গত গত ছয় মাসে মন্দির আক্রমণ ও মূর্তি ভাঙার কমপক্ষে ৪৬ টি ঘটনা ঘটেছে বাংলাদেশে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.