বালাকোটে মিরাজের যায়গায় ১২টি রাফাল গেলে পাকিস্তানে হাহাকার পড়ে যেতঃ প্রাক্তন বায়ুসেনা প্রধান

পাকিস্তানের অন্দরে ঢুকে জঙ্গি আস্তানা গুঁড়িয়ে দেওয়ার পর থেকেই রাষ্ট্রীয় সুরক্ষার ইস্যু রাজনীতির কেন্দ্রে চলে আসে। কেন্দ্র সরকার পরিষ্কার বুঝিয়ে দেয় যে, ভারতীয় সেনা পাকিস্তানকে জবাব দেওয়ার জন্য তৈরি। আর এরই মধ্যে জাতীয় সংবাদ মাধ্যম ‘আজতক” এই ইস্যু নিয়ে একটি সুরক্ষা সভার আয়োজন করে। সেই মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন প্রাক্তন সেনা প্রধান বিক্রম সিং এবং প্রাক্তন এয়ার চিফ মার্শাল এওয়াই টিপনিস।

আজতকের মঞ্চ থেকে প্রাক্তন বায়ুসেনা প্রধান টিপনিস রাফাল বিমানের গুরুত্ব বোঝান। উনি বলেন, আজ আমাদের হাওয়াই শক্তি প্রয়োজনের থেকে কম। আমাদের ৪২ টি স্কোয়াড্রানের দরকার, কিন্তু আমাদের কাছে ৩২ টি আছে। আগামী কিছু বছরে এটি আরও কম হয়ে যাবে। রাফালার দরকার আমাদের কারণ, ওটি আমারিকা যুদ্ধ বিমান এফ-৩৫ এর মোকাবিলা করতে পারবে।

উনি বলেন, বালাকোটের জঙ্গি আস্তানায় ১২ টি মিরাজ ২০০০ এর যায়গায় ১২ টি রাফাল গেলে পাকিস্তানে হাহাকার পরে যেত। উনি বলেন, আমাদের দেশে আজকের দিনে রাফালের খুব প্রয়োজন। আর শুধু একটা না, পুরো ৩৬ টি রাফাল বায়ুসেনায় একসাথে নিযুক্ত করতে হবে।

উনি বলেন, যেরকম ভারতীয় বায়ুসেনার এয়ার স্ট্রাইকের পর পাকিস্তানের ২৪ টি বিমান ভারতে বায়ু সীমা লঙ্ঘন করে ভারতে ঢুকে গেছিল। সেদিনও যদি আমাদের কাছে রাফাল থাকত। তাহলে ওদের ১২টি বিমান ফেরত যেতে পারত না। টিপনিস জানান, সেদিন পাকিস্তান আমাদের থেকে বদলা নিতেই এসেছিল। কিন্তু আমাদের বায়ুসেনা ওদের ওই ষড়যন্ত্র বিফল করে দেয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.