তোমরা যদি বিজেপিকে ভোট দাও, দেশ আরও শক্তিশালী হবে, প্রথমবারের ভোটারদের কাছে আবেদন মোদীর

তোমরা কি চাও তোমাদের প্রথম ভোটের বিনিময়ে গরিবরা মাথা গোঁজার ঠাঁই পাক? চাষির ক্ষেতে জল পৌঁছাক? মঙ্গলবার মহারাষ্ট্রের লাতুরে এক জনসভায় প্রথমবারের ভোটারদের উদ্দেশে এই প্রশ্ন করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তাঁর বক্তব্য, যে তরুণ-তরুণীরা এবার প্রথম ভোটাধিকার লাভ করেছেন, তাঁরা যদি বিজেপিকে ভোট দেয় তাহলে গরিবদের জন্য আবাসন তৈরি হবে। ক্ষেতে জলসেচের ব্যবস্থা হবে।

বালাকোটে জঙ্গি ঘাঁটিতে বায়ুসেনার বোমাবর্ষণের কথাও উল্লেখ করেন মোদী। তাঁর কথায়, আমি প্রথমবারের ভোটারদের বলতে চাই, তোমাদের প্রথম ভোটে বায়ুসেনার সাহসী সৈনিকরা সম্মানিত হতে পারেন।

এদিন মহারাষ্ট্র বাদে তামিলনাড়ু ও কর্ণাটকেও জনসভা করবেন মোদী। অন্যদিকে বিজেপির সভাপতি অমিত শাহ সভা করবেন ওড়িশা, তেলঙ্গানা ও মহারাষ্ট্রে।

লাতুরের জনসভায় মোদী বলেন, কংগ্রেস কর্মীরা মধ্যপ্রদেশে আয়কর দফতরের তল্লাশির সময় বাধা দেওয়ার চেষ্টা করেছিল। মিডিয়ার লোকজন সেখানে উপস্থিত হতেই তারা দৌড়ে পালিয়ে যায়।

সম্প্রতি মধ্যপ্রদেশে মুখ্যমন্ত্রী কমল নাথের ঘনিষ্ঠদের বাড়িতে তল্লাশি চালায় আয়কর দফতর। সোমবার দিল্লিতে ডিরেক্টরেট অব ইনকাম ট্যাক্স থেকে বলা হয়, মধ্যপ্রদেশে এক ‘বিস্তৃত’, ‘সংগঠিত’ চক্রের কাছে বিপুল পরিমাণ হিসাব বহির্ভূত অর্থ আছে। আমরা তল্লাশি করে ২৮১ কোটি টাকা উদ্ধার করেছি। যাদের বাড়িতে তল্লাশি করা হয়েছে, তাদের মধ্যে আছে ব্যবসায়ী, রাজনীতিক এবং সরকারি কর্মী।

সেন্ট্রাল বোর্ড অব ডায়রেক্ট ট্যাক্সেস থেকে বলা হয়েছে, তল্লাশিতে হিসাব বহির্ভূত অর্থের পাশাপাশি ২৫২ বোতল মদ, কয়েকটি অস্ত্র ও বাঘের চামড়াও পাওয়া গিয়েছে। দিল্লিতে এক শীর্ষস্থানীয় রাজনৈতিক নেতার ঘনিষ্ঠদের বাড়িতে তল্লাশি চালিয়ে পাওয়া গিয়েছে কয়েকটি হিসাবের খাতা। তাতে ২৩০ কোটি টাকার বেআইনি লেনদেনের হিসাব আছে।

কংগ্রেস ও অন্যান্য বিরোধী দল একবাক্যে অভিযোগ করেছে, তাদের প্রচারে বাধা দেওয়ার জন্য আয়কর দফতরকে কাজে লাগাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এই অভিযোগে নড়েচড়ে বসেছে নির্বাচন কমিশনও। আয়কর ও রাজস্ব দফতরকে চিঠি দিয়ে বলা হয়েছে, তল্লাশির পিছনে যেন রাজনীতি না থাকে। কারও বাড়িতে বা অফিসে তল্লাশির আগে নির্বাচন কমিশনকে জানাতেও বলা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী এদিন লাতুরের জনসভায় এই তল্লাশির কথাই উল্লেখ করেছেন।

একই সঙ্গে মোদী প্রতিশ্রুতি দেন, ভোটে জিতলে জল সংরক্ষণের জন্য আলাদা মন্ত্রক তৈরি করবেন। কংগ্রেসের ‘ন্যায়’ প্রকল্পের সমালোচনা করে তিনি বলেন, ওই দলটি কেবল মিথ্যা প্রতিশ্রুতি দেয়। কিন্তু আমরা কেবল সেই প্রতিশ্রুতিই দিই যা পালন করা সম্ভব।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.