১৯৮৯ সাল থেকে এই প্রথম, পুলওয়ামার ত্রল অঞ্চল পুরোপুরিভাবে হিজবুল জঙ্গি মুক্ত

বর্তমানে পুলওয়ামা জেলার ত্রল অঞ্চল পুরোপুরিভাবে হিজবুল মুজাহিদিন জঙ্গি মুক্ত। ১৯৮৯ সাল থেকে সন্ত্রাস কবলিত হওয়ার পর থেকে এই প্রথমবার এই ঘটনা ঘটেছে।

পুলওয়ামা জেলার দক্ষিণ কাশ্মীরের ত্রলের উলার অঞ্চলে সেনাবাহিনীর সঙ্গে সারারাত গুলির লড়াই চলার পরে শুক্রবার তিন জঙ্গির মৃত্যুর হয়েছে, ঠিক সেই ঘটনার পরেই এমন দাবি জানিয়েছে জম্মু ও কাশ্মীর পুলিশ।

কাশ্মীরের ইন্সপেক্টর জেনারেল অফ পুলিশ বিজয় কুমার ট্যুইট করে জানিয়েছেন, “আজকের সফল অপারেশনের পরে ত্রল অঞ্চলে হিজবুল মুজাহিদিনের কোনও জঙ্গি সেখানে নেই। ১৯৮৯ থেকে এই প্রথম এমন ঘটনা ঘটেছে”।

হিজবুল মুজাহিদিন জঙ্গিগোষ্ঠীর উচ্চস্তরের কম্যান্ডার যেমন বুরহান ওয়ানি এবং জাকির মুসাও ত্রলেরই অংশ ছিল। কিছুদিন আগে একসঙ্গে নয়টি বড় অপারেশন চালিয়েছে ভারতীয় সেনা। সবক’টি অপারেশনে ২২ জন জঙ্গিকে নিকেশ করা সম্ভব হয়েছে।

২২ জন জঙ্গির মধ্যে ছয়’জন টপ কম্যান্ডার রয়েছেন। কাশ্মীরের সন্ত্রাসবাদে একটা ট্রেন্ড লক্ষ্য করা যাচ্ছে বলে জানিয়েছে ভারতীয় সেনা। সেনা সূত্রে খবর চলতি বছরে যতবার হামলা হয়েছে জঙ্গিদের, প্রত্যেক বারই দেখা গিয়েছে হয় ব্যর্থ হয়েছে, নয়তো ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ অনেকটাই কম হয়েছে। সেনা বলছে জঙ্গিদের হামলা ধরণে স্পষ্ট চাপ রয়েছে অপরিকল্পিত পদ্ধতির। যেটা আগে ছিল না।

সূত্রের খবর কাশ্মীরিদের একাংশ যেভাবে জঙ্গিদের সাহায্য করত, সেই সাহায্য এখন আর পাচ্ছে না জঙ্গি সংগঠনগুলি। যা বেশ আশার আলো জাগাচ্ছে। কাশ্মীরিরা শান্তি চাইছেন। কোনও সন্ত্রাসবাদকে প্রশ্রয় দিতে চাইছেন না তাঁরা। এমনই জানাচ্ছেন লেফটেন্যান্ট জেনারেল বি এস রাজু। তাঁর মতে, বিচ্ছিন্নতাবাদীদের জনপ্রিয়তার ভিত্তিও কমে এসেছে। ফলে হালে পানি পাচ্ছে না জঙ্গিরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.