পর্নোগ্রাফির বাড়বাড়ন্ত! চিনা ভিডিও অ্যাপ ‘টিক টক’ নিষিদ্ধ করতে বলল মাদ্রাজ হাইকোর্ট

 গান, সিনেমার ডায়লগ, মজার অডিও দিয়ে শুরুটা হলেও শেষটা মোটেই সুখের হচ্ছে না। চিনা ভিডিও অ্যাপ ‘টিক টক’-এ নাকি ক্রমশ বাড়ছে পর্নোগ্রাফি ভিডিও আপলোডের নেশা, এমনটাই জানাচ্ছে সাইবার নিরাপত্তা বিভাগ। এই অ্যাপের হাত ধরেই সোশ্যাল মিডিয়া জুড়ে অশ্লীল ভিডিওর পাশাপাশি প্ররোচনামূলক এবং বিতর্কিত ভিডিও ছড়িয়ে পড়ছে দ্রুত। ভোটের আগে সাইবার নিরাপত্তা নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় এখন চলছে চুলচেরা বিশ্লেষণ। নয়া এই ভিডিও অ্যাপ নতুন করে বিতর্কের জন্ম দিতে পারে বলেই মনে করা হচ্ছে। তাই আগে ভাগেই রাশ টানতে অবিলম্বে এই অ্যাপ নিষিদ্ধ ঘোষণা করার জন্য কেন্দ্রকে নির্দেশ দিল মাদ্রাজ হাইকোর্ট।

হোয়াটসঅ্যাপ, ফেসবুককে টেক্কা দিয়েছে বহুদিন আগেই। জেন এক্স, জেন ওয়াইয়ের পছন্দের তালিকা জুড়ে এখন শুধুই ‘টিক টক’। বিভিন্ন গান, বিখ্যাত সিনেমার ডায়লগ-সহ নানা রকম মজাদার অডিও-র সঙ্গে ঠোঁট মিলিয়ে কয়েক মিনিটের ছোট ভিডিও তৈরি করে সোশ্যাল মিডিয়ায় আপলোড এবং তাতে লাইক, কমেন্টের বন্যা। সরকারি সমীক্ষা বলছে, ২০১৮ সালে ভারতে সব থেকে বেশি ডাউনলোড করা অ্যাপগুলির মধ্যে প্রথম দিকেই রয়েছে ‘টিক টক’। মাসের হিসেবে এই অ্যাপের অ্যাকটিভ ইউজার সংখ্যা ৫ কোটিরও বেশি।

সাইবার নিরাপত্তা বিভাগের সূত্র বলছে, এই ভিডিও অ্যাপে ইদানীং কালে নানা অশ্লীল ভিডিও, পর্নোগ্রাফি এমনকি শিশু পর্নোগ্রাফিরও ছড়াছড়ি। মাদ্রাজ হাইকোর্টে পিটিশন দাখিল করে অ্যাপটি দ্রুত বন্ধ করার কথা বলেন মাদুরাইয়ের এক আইনজীবী এবং সমাজসেবী মুথু কুমার। তিনি জানান, শিশুরাও আজকাল সোশ্যাল মিডিয়ায় খুবই সক্রিয়। এই ধরনের পর্নোগ্রাফিক ভিডিও তাদের মধ্যে বিরূপ প্রভাব ফেলবে। শিশু ধর্ষণ, আত্মহত্যার ঘটনা বহুগুণ বেড়ে যাবে।

‘টিক টক’ অ্যাপের বিরুদ্ধে প্রথম অভিযোগ আনেন তামিলনাড়ুর এআইডিএমকে নেতা ও বিধায়ক থামিমাম আনসারি। তাঁর অভিযোগ ছিল, এই অ্যাপটি ভারতীয় সংস্কৃতির বিরোধী। চিন কিংবা সৌদি আরবে এই সব অ্যাপের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার নিজস্ব পদ্ধতি রয়েছে। ভারত পারিবারিক সংস্কৃতির উপর বিশ্বাস করে।কেন্দ্র এ বিষয়ে পদক্ষেপ না নিলে, তিনি নিজেই কঠোর নিয়মাবলী আনা যায় কি না সেই ব্যাপারে খোঁজ নেবেন

বিচারক এন কিরুভাকরণ এবং বিচারক এসএস সুন্দরের ডিভিশন বেঞ্চ জানিয়েছে, এই অ্যাপের প্রভাব মারাত্মক হতে পারে। ১৬ এপ্রিলের আগে এই অ্যাপ বন্ধ করার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিক কেন্দ্র। যদিও অশ্লীলতা বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানিয়েছে  ‘টিক টক’-এর আইটি সেল। তাদের তরফে জানানো হয়েছে, ‘‘আমাদের একমাত্র উদ্দেশ্য মানুষের মনোরঞ্জন করা। সেখানে এই অ্যাপটিকে খারাপ ভাবে প্রয়োগ করা হলে সেটা কখনওই গ্রহণযোগ্য হবে না। আমরা ব্যবস্থা নিচ্ছি।’’

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.