২২ মে ISRO এক রাডার ইমেজিং স্যাটেলাইট Risat-2BR1 শ্রীহরিকোটা মহাকাশ কেন্দ্র থেকে নিক্ষেপন করবে। এই স্যাটেলাইট নিক্ষেপ করার পর ভারতীয় সেনা দারুণভাবে লাভবান হবে। সূত্রের খবর অনুযায়ী, Risat-2BR1 নামক এই স্যাটেলাইট আগের Risat স্যাটেলাইটের অনেক বেশি এডভান্স। যদিও এই স্যাটেলাইট আগের স্যাটেলাইটের মতোই দেখতে। লক্ষণীয় বিষয়, এই স্যাটেলাইট এই মধ্যে নজর রাখার ক্ষমতা ও ছবি তোলার ক্ষমতাকে বাড়ানো হয়েছে।

ISRO(ইসরো) দ্বারা নিক্ষেপিত এই স্যাটেলাইট এর বিশেষত্ব এই যে, এর রাডার পৃথিবীতে থাকা কোনো বিল্ডিং বা বস্তুর ছবি দিনে দু থেকে তিনবার নিতে পারে। ফলস্বরূপ, ভারতীয় সেনা পাকিস্তানের জিহাদি ক্যাম্পের গতিবিধির উপর নজর রাখতে সক্ষম হবে। এছাড়াও ISRO( ইসরো) এর স্যাটেলাইট LOC এর চারিদিকে নজর রাখা যাবে ও অনুপ্রবেশ আটকানো যাবে। Risat এর সিনথেটিক আর্পেচার রাডার এই স্যাটেলাইটকে দিনের সাথে সাথে রাতেও পরিষ্কার ছবি নিতে সাহায্য করবে।

সিনথেটিক আর্পেচার রাডার ঘন মেঘকে ভেদ করতে সক্ষম। যার জন্য যেকোনো মরশুমে ছবি তুলে ভারতীয় সেনার হাতে পৌঁছে দেবে ISRO( ইসরো) এর এই স্যাটেলাইট। দুটি বস্তু যদি ১ মিটার দূরত্ব থেকে বস্তুর দচিহ্নিত করণ করতে এই স্যাটেলাইট খুবই দক্ষ। সমুদ্রে থাকা জাহাকে ট্রাক করতেও ISRO( ইসরো) এর এই স্যাটেলাইট সক্ষম।

হিন্দ মহাসাগরে চীন যেভাবে নিজের প্রভাব বৃদ্ধি করার চেষ্টা করে তা নিয়ে ভারত সর্বদা সচেতন থাকে। এর মধ্যে Risat-2BR1 হিন্দ মহাসাগরে চিনী ও আরব মহাসাগরে পাকিস্তানী জাহাজের উপর কড়া নজর রাখতে পারবে। সার্জিক্যাল স্ট্রাইকের মতো গুরুত্বপূর্ণ অপারেশনকে সম্পুর্ন করতে এই ধরনের স্যাটেলাইট বড়ো ভূমিকা পালন করে। Risat এর প্রথম স্যাটেলাইট ২০১৬ এর সার্জিক্যাল স্ট্রাইকের সময় কাজে এসেছিল। এমনকি বালাকোট এয়ার স্ট্রাইকেও এই স্যাটেলাইট ব্যাবহার করা হয়েছিল।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.