মোদীকে হারাতে খ্রিস্টান ও মুসলিম দেশগুলি থেকে হচ্ছে হাজার কোটি টাকার ফান্ডিং:বাবা রামদেব।

ভারতের লোকসভা নির্বাচনকে বাইরের দেশ থেকে প্রভাবিত করার চেষ্টা হচ্ছে। এমনটাই জানালেন যোগগুরু বাবা রামদেব(Swami Ramdev baba)। নরেন্দ্র মোদী যাতে ক্ষমতায় না থাকে তার জন্য বিদেশ থেকে ষড়যন্ত্র চলছে বলে জানান যোগগুরু বাবা রামদেব। উনি( বাবা রামদেব) বলেন, ভারতে লোকসভা নির্বাচন চলছে। এই নির্বাচনে যাতে নরেন্দ্র মোদী হেরে যায় তথা NDA সরকার ক্ষমতায় না আসতে পারে তার জন্য খ্রিষ্টান ও মুসলিম দেশগুলি থেকে ষড়যন্ত্র চলছে।

বাবা রামদেব বলেন, বিদেশ থেকে ফান্ডিং চলছে নরেন্দ্র মোদীকে হারানোর ষড়যন্ত্র সফল করতে। রামদেব বাবা বলেন, ভারতের বাইরে এবং ভেতরে যে দেশবিরোধী শক্তি রয়েছে তার সক্রিয় হয়ে কাজ করছে। উনি বলেন মুসলিম ও খ্রিস্টান দেশগুলি নরেন্দ্র মোদীর বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র চালাচ্ছে।

বাবা রামদেব সরাসরি খ্রিস্টান ও মুসলিম দেশগুলির উপর অভিযোগ তুলে বলেন যে, ওই দেশগুলি মোদীকে হারানোর জন্য হাজার হাজার কোটি টাকার ফান্ডিং চালাচ্ছে। জানিয়ে দি, ভারতের লোকসভা নির্বাচনের উপর পুরো বিশ্বের নজর রয়েছে। পাকিস্থান, চীন থেকে শুরু করে খ্রিষ্টান মিশনারি সংগঠনগুলি এই নির্বাচনকে প্রভাবিত করার ব্যাপক চেষ্টা চালাচ্ছে।

জানিয়ে দি, ভারত বিশ্বের সবথেকে উর্বর জমি। তাই ভারতের উপর নজর পুরো বিশ্বের থাকে। বহু সময় থেকে ভারতে বৈদেশিক আক্রমন হয়ে আসছে। বর্তমানে ভারত ইংরেজ ও মুখলদের গোলামী থেকে মুক্তি পেলেও পূর্ন মুক্তি পায়নি। এখোনো ভারতীয় শিক্ষা এবং সঙ্গস্কৃতির ইংরেজদের গোলাম হয়ে আছে। ভারতীয়রা যে শিক্ষা গ্রহন করে সেটা মেকেলে এবং ম্যাক্সমুলার দ্বারা গঠিত শিক্ষা। অন্যদিকে ভারত আধিকারিকগত যে ভাষা ব্যবহার করা হয় তা ইংরাজি ভাষা।

ভারতে বিদেশী কোম্পানিগুলো আজও ব্যাপকহারে ব্যাবসা করে চলেছে যাতে দেশের সর্বনাশ হচ্ছে। কীটনাশক তৈরি কোম্পানি হোক,কোল্ডড্রিংকস কোম্পানি হোক বা সিগরেট তৈরির কোম্পানি হোক সব ক্ষেত্রেই ভারতে বিদেশি কোম্পানির দাপট। এই কোম্পানিগুলি একদিকে ভারত দেশের ক্ষতি করছে অন্যদিকে বিশাল মোটা টাকা দেশ থেকে লুটে নিয়ে যাচ্ছে। NDA সরকার ধীরে ধীরে এই সমস্থ ইস্যু থেকে ভারতকে মুক্ত করার কাজে নেমেছে যা মোটেও মেনে নিতে পারছে না বৈদেশিক শক্তি। যার জন্য লোকসভা নির্বাচনকে প্রভাবিত করতে ফান্ডিং করা হচ্ছে। বাবা রামদেব যে দাবি করেছেন তা খুবই গম্ভীর বিষয় এবং নিবার্চন কমিশনের উচিত এসবের দিকে লক্ষ রেখে নির্বাচন সম্পন্ন করানো।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.