উড়ান প্রকল্পে দেশে তৈরি হবে ১০০ টি নতুন বিমানবন্দর

দেশের আর্থিক বৃদ্ধির হার ক্রমাগত নিম্নমুখী। বেড়েছে নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের দাম। বেড়েছে বেকারত্বের হার। এহেন পরিস্থিতিতে চ্যালেঞ্জিং বাজেট পেশ করলেন অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন। বাজেটে বিশেষভাবে জোর দেওয়া হয়েছে উড়ান প্রকল্পের ওপর। ২০২৪ সালের মধ্যে এই প্রকল্পে দেশে আরও ১০০টি নতুন বিমানবন্দর তৈরীর কথা ঘোষণা করা হয়েছে বাজেটে।

বড় বড় শহরের বিমানবন্দরগুলির সংস্কার ছাড়াও ছোট শহরগুলিতে যেখানে বিমানবন্দর নেই সেখানেও বিমান পরিষেবার কথা চিন্তাভাবনা শুরু করেছে কেন্দ্র সরকার। শেষ কয়েক বছরে এই উড়ান প্রকল্পে দেশের একাধিক শহরের বিমানবন্দর তৈরি হয়েছে। সেই সংখ্যা আরো বাড়াতে আগ্রহী মোদী সরকার।

দেশের আভ্যন্তরীণ বিমান পরিষেবা ব্যবস্থা ভালো করতে এই পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে বলে জানান নির্মালা সীতারমন। ২০২৩-২৪ এর মধ্যে বাড়তি নতুন বিমান চালু করার পরিকল্পনাও রয়েছে। শুধু বিমানবন্দর তৈরি করাই নয় বেশি সংখ্যায় বিমান চলাচলও প্রয়োজন। তাই ২০২৩-২৪ অর্থবর্ষের মধ্যে দেশে ১০০টি নতুন বিমানবন্দরের পাশাপাশি ৪৬টি আইডল এয়ারস্ট্রিপ, ১৬টি বেসরকারি গ্রিনফিল্ড বিমানবন্দর, ১৫টি এএআই এয়ারপোর্ট, ৩১টি হেলিপোর্ট এবং ১২টি ওয়াটার ড্রামসেরও উন্নয়নের পরিকল্পনা রয়েছে।

একইসঙ্গে অর্থমন্ত্রী বলেন, সমুদ্র বন্দরগুলোকেও আরো উন্নত করা প্রয়োজ। ২০২০-২১ এ পরিবহনের সুবিধাজনক পরিস্থিতি তৈরি করার জন্য ১.৭০ লক্ষ কোটি টাকা দেওয়ার প্রস্তাব করা হয়েছে বাজেটে। একইসঙ্গে রাষ্ট্রীয় গ্যাস গ্রিডকে বাড়িয়ে ২৭ হাজার কিলোমিটার পর্যন্ত করার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে বাজেটে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.